কোভিড-১৯ এবং অসংক্রামক রোগ

প্ল্যাটফর্ম নিউজ, ১৩ জুলাই ২০২০, সোমবার
ডা. মো. রিজওয়ানুল করিম শামীম
সহযোগী অধ্যাপক  
(এপিডেমিওলজি)
ওএসডি, স্বাস্থ্য অধিদপ্তর এন্ড
প্রোগ্রাম ম্যানেজার-২, এনসিডিসি

অসংক্রামক রোগে আক্রান্ত অথবা যাদের পরিবারে অসংক্রামক রোগে আক্রান্ত রোগী আছেন তাদের জন্যঃ

* সব বয়সের মানুষই করোনা ভাইরাস (কোভিড-১৯) দ্বারা আক্রান্ত হতে পারেন, তবে ৬০ এর উপরে যাদের বয়স তাদের বেলায় এই ভাইরাসে গুরুতরভাবে আক্রান্ত হওয়ার ঝুঁকি বেড়ে যায়।
* যাদের আগে থেকে অসংক্রামক রোগ রয়েছে, তারা কোভিড-১৯ দ্বারা আক্রান্ত হলে আরো বেশি দুর্বল এবং গুরুতর অসুস্থ হয়ে যেতে পারেন।

অসংক্রামক রোগগুলো, যেমনঃ

১. বিভিন্ন হৃদরোগ (যেমন- উচ্চরক্তচাপ, সেসব ব্যক্তি যাদের হার্ট এ্যাটাক বা স্ট্রোক হয়েছে বা ঝুঁকিতে আছেন)
২. দীর্ঘমেয়াদী শ্বাসতন্ত্রের রোগ (যেমন- সিওপিডি, হাঁপানি ইত্যাদি)
৩. ডায়াবেটিস
৪. ক্যান্সার

করোনা ভাইরাস দ্বারা সংক্রমিত রোগ (কোভিড-১৯) এর জন্য কারিগরি নির্দেশিকা অনুযায়ী রোগীর ব্যবস্থাপনাঃ

১. রোগীর কো-মরবিডিটি বা অন্যান্য অসুস্থতা আছে কিনা জেনে নিতে হবে এবং ঐসকল রোগের অবস্থা ও মাত্রা বুঝে বর্তমান রোগের গতিবিধি পর্যবেক্ষণ করে ব্যবস্থা নিতে হবে।
২. রোগী এবং তার পরিবারের সাথে যত দ্রুত সম্ভব যোগাযোগ করতে হবে।
৩. কোভিড-১৯ এ গুরুতর অসুস্থ রোগীর ব্যবস্থাপনার ক্ষেত্রে, কোন ঔষধটি রোগীকে দেয়া হবে আর কোন ঔষধটি সাময়িকভাবে বন্ধ থাকবে- এটা প্রথমে ঠিক করে নিতে হবে।
৪. রোগী এবং তার পরিবারের সাথে সক্রিয়ভাবে যোগাযোগ রাখতে হবে। রোগীর চিকিৎসা এবং সুস্থ হয়ে উঠা নিয়ে নিয়মিত খবরাখবর দিতে হবে।
৫. রোগীর জীবন সঙ্কটাপন্ন হলে, যে কোন জীবন রক্ষাকারী ব্যবস্থা বা চিকিৎসা করার ক্ষেত্রে; রোগীর ইচ্ছা এবং মতামতের উপর শ্রদ্ধা রেখে পরিবারকে অবহিত করে সেদিকে অগ্রসর হওয়া বাঞ্ছনীয়।

যে সকল ঝুঁকির কারণ এবং অবস্থা কোন কোভিড-১৯ আক্রান্ত রোগীকে গুরুতর অসুস্থ করে দিতে পারেঃ

* ধূমপায়ীদের কোভিড-১৯ এ আক্রান্ত হওয়ার ঝুঁকি অনেক বেশি। কারন যারা ধূমপান করেন তাদের হাত বারবার ঠোঁটে মুখে লেগে যায়, সেখান থেকে সহজেই ভাইরাস মুখে বা নাকে চলে যেতে পারে। আর এভাবেই তাদের কোভিড-১৯ এ আক্রান্ত হওয়ার সম্ভাবনা বহুগুন বেড়ে যেতে পারে।
* এছাড়া ধূমপায়ীদের এমনিতেই ফুসফুসের বিভিন্ন সমস্যা থাকে বা ফুসফুসের রোগ প্রতিরোধকারী ক্ষমতা কম থাকে, যার কারনে এই মানুষদের ক্ষেত্রে কোভিড-১৯ এ গুরুতরভাবে আক্রান্ত হওয়ার সম্ভাবনা বেড়ে যায়।
* ধূমপান এর বিকল্প হিসেবে ব্যবহৃত সীসা, হুক্কা কিংবা ইলেক্ট্রনিক সিগারেট ইত্যাদি অনেক সময় একাধিক ব্যক্তি একসাথে ব্যবহার করে, যার ফলে কোভিড-১৯ এ সংক্রমণের ঝুঁকি বেড়ে যায় বহুগুন।
* যে সকল রোগের কারণে শরীরে অক্সিজেনের চাহিদা বেড়ে যায় বা শরীরের অক্সিজেন ব্যবহার করার ক্ষমতা কমে যায়, সে সকল অবস্থায় কোভিড-১৯ এ আক্রান্ত হলে গুরুতর অসুস্থ হওয়ায় সম্ভাবনা বেড়ে যায়।

একটি স্বাস্থ্যসম্মত জীবনযাপন, যেমন-

  • স্বাস্থ্যসম্মত খাবার খাওয়া,
  • শরীরের বিভিন্ন অঙ্গকে ঠিকঠাকভাবে কর্মক্ষম রাখা,
  • রোগপ্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ানো,
  • নিয়মিত শারীরিক পরিশ্রম করা,
  • ধূমপান এবং মদ্যপান থেকে বিরত থাকা,
  • পর্যাপ্ত ঘুম ইত্যাদি মেনে চললে কোভিড-১৯ এ গুরুতর অসুস্থ হওয়ায় সম্ভাবনা কমে যাবে।

অসংক্রামক রোগে আক্রান্ত বা তাদের সাথে বসবাস করা মানুষদের জন্য পরামর্শঃ

১) ডাক্তারের পরামর্শ অনুযায়ী ঠিকমত ঔষধপত্র খেতে হবে।
২) যদি সম্ভব হয় তাহলে একমাসের মত ঔষধ সংরক্ষণে রাখতে হবে।
৩) যাদের হাঁচি-কাশি বা এই জাতীয় রোগ আছে, তাদের থেকে অন্তত এক মিটার বা ৩ ফুট দূূূূরত্ব বজায় রাখতে হবে।
৪) সাবান পানি দিয়ে অন্তত ২০ সেকেন্ড ধরে ঘন ঘন হাত ধুতে হবে।
৫) ধূমপান থেকে বিরত থাকতে হবে৷
৬) মাদক বা এর সাথে সম্পর্কিত কোন কিছু গ্রহণ থেকে বিরত থাকতে হবে।
৭) নিজের মানসিক স্বাস্থ্যের প্রতি যত্নবান হতে হবে।

Tasnim Sanjana Kabir Khan

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Time limit is exhausted. Please reload the CAPTCHA.

Next Post

করোনা চিকিৎসায় নতুন উদ্ভাবনঃ নেগেটিভ প্রেসার আইসোলেশন ক্যানোপি

Mon Jul 13 , 2020
প্ল্যাটফর্ম নিউজ, ১৩ জুলাই, ২০২০, সোমবার করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত রোগীর হাঁচি- কাশি থেকে নির্গত জীবাণুর মাধ্যমে সংক্রমিত হয় অন্যান্য রোগী, চিকিৎসক ও স্বাস্থ্যকর্মীগণ। জীবাণুর সংক্রমণ রোধে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ও বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের এর যৌথ গবেষণায় তৈরি করা হল “নেগেটিভ প্রেসার আইসোলেশন ক্যানোপি”। গবেষক দলের তত্ত্বাবধায়ক ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের বায়োমেডিকেল […]

সাম্প্রতিক পোষ্ট