• প্রথম পাতা

November 28, 2017 3:47 pm

প্রকাশকঃ

Prof-Abul-Kalam-Azad-appointed-DG-for-health-services

 

 

আমার প্রিয় সহকর্মীগণের দৃষ্টি আকর্ষণ করে কিছু হীনমন্য মানুষের কুকীর্তির কথা জানাবো। কেউ কেউ হয়ত লক্ষ্য করেছেন অন্ততঃ তিনটি অপরিচিত তথাকথিত অনলাইন পত্রিকায় একই সংবাদ হুবহু একই ভাষায় একই সময়ে প্রকাশিত হয়েছে। সংবাদটিতে আমাকে উদ্ধৃত করেও মিথ্যা কথন করা হয়েছে। আমাকে নিয়ে যা লেখা হয়েছে তা নীচে হুবহু উদ্ধৃত করছিঃ

 

“মন্ত্রণালয়ের দুটি অধিদপ্তরের মহাপরিচালকের বিরুদ্ধে দুর্নীতির অভিযোগ তদন্ত করছে দুর্নীতি দমন কমিশন। স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালক তাঁর স্ত্রীর নামে কোম্পানী করে তথ্য প্রযুক্তির ব্যবসা করছেন বলে দুর্নীতি দমন কমিশন তদন্ত করছে। পরিবার পরিকল্পনার মহাপরিচালকের বিরুদ্ধে অভিযোগের অন্ত নেই।” আমি দ্ব্যর্থহীন কন্ঠে বলতে চাই আমাকে আপনারা যেমনভাবে চেনেন আমি তেমনই আছি। মহাপরিচালক হয়ে সততা, একনিষ্ঠতা, জবাবদিহিতা কোন বিষয়েই আমি এতটুকু বদলাই নাই। জীবনে দুর্নীতির ধারে কাছে যাই নাই। বর্তমানে এবং ভবিষ্যতেও যাবো না ইনশা আল্লাহ্। আমার স্ত্রী চিকিৎসা বিজ্ঞানের একজন অধ্যাপক। দীর্ঘ ত্রিশ বছর ধরে একই বেসরকারি মেডিকেল কলেজে সুনামের সাথে চাকুরী করছেন। তার ছাত্র-ছাত্রীরাই বলতে পারবে তার চরিত্রের মহিমার কথা। আমাদের দুজনের বৈধ আয়েই আমাদের সংসার ভালোভাবে চলে। উভয়ের দেশের বাড়িতেও পৈত্রিক সম্পত্তি আছে।

 

আমাদের দুজনের কারুরই কোন ব্যবসা নেই। তথ্য প্রযুক্তি কোম্পানী তো দূরের কথা তার বা আমার নামে কোন ধরণের কোম্পানি নেই। দুদক এসব নিয়ে তদন্ত করছে বলেও আমাদের জানা নেই। আমাদের সুখের সংসারে একটিই মাত্র সন্তান। সে এখনও লেখাপড়াতেই আছে। পদ-পদবীর সুবাদে কোথাও প্রভাব বিস্তার করেছি এমন অভিযোগ আমার বিরুদ্ধে কেউই দিতে পারবে না। আমি কেমন প্রকৃতির মানুষ আমার সহকর্মীরা তার ভালো সাক্ষী।

 

আমি এতগুলো কথা বললাম এজন্য যে আপনারা যেন বিভ্রান্ত না হন। আমি মনপ্রাণ দিয়ে কাজ করছি যাতে সামান্য সময় যেটুকু পাওয়া যায় সে সময়টুকু কাজে লাগিয়ে দেশের স্বাস্থ্য ব্যবস্থার জন্য এবং আপনাদের সবার জন্য কিছুটা ভালো করতে পারি। ঈর্ষা কাতর এবং অন্যায়ভাবে সুবিধা অর্জন করতে পারছেন না এমন স্বার্থান্বেষী মহল এমন কাজে লিপ্ত হয়েছে তাতে কোন সন্দেহ নেই।

বিষয়টি হাস্যকর হয়ে উঠে যখন তিনটি একেবারেই অপরিচিত তথাকথিত অনলাইন পত্রিকায় একই তারিখে একই সংবাদ হুবহু একই ভাষায় প্রকাশিত হয়। এসবের কারণ আমরা যারা ভালো কিছু করার জন্য আপ্রাণ চেষ্টা করছি তাদের দুর্বল করে দেয়া এবং অপচেষ্টার মাধ্যমে আমাদের সুনাম নষ্ট করা।

 

 

আমরা এদের ষড়যন্ত্রের কাছে হার মানবো না। আমি ইতিমধ্যে আইন শৃংখলা বাহিনীর গোচরে বিষয়টি এনেছি। তারা সাইবার অপরাধ হিসেবে বিষয়টিকে বিবেচনায় নিয়ে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নিচ্ছে। আমাদের ভালো কাজগুলোর প্রতি আমাদের অকুতভয় দূরদর্শী ও বিচক্ষণ প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সমর্থন অব্যাহত থাকবে। মহাপরাক্রমশালী পরম করুণাময় আমাদের সাথে আছেন।
আপনাদের ভালোবাসা ও দোয়া কামনা করি সব সময়।

উল্লেখ্য, গত কিছুদিন আগে কিছু নাম না জানা অনলাইন নিউজ  পোর্টালে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালক
অধ্যাপক ডা. আবুল কালাম আজাদ কে নিয়ে কিছু অযৌক্তিক , মিথ্যা অভিযোগ নিয়ে লেখালেখি হয় এবং তার নামে বিভ্রান্তিমূলক তথ্য ছড়ানো হয়।  সেই সকল  লেখার প্রেক্ষিতে তিনি  ফেইসবুকে পোস্টের মাধ্যমে তার অবস্থান পরিষ্কার করেন । ইতোমধ্যে তিনি আইন শৃঙ্খলা বাহিনীর সাহায্য নিয়েছেন বলেও পোস্টটিতে তিনি উল্লেখ করেন।

শেয়ার করুনঃ Facebook Google LinkedIn Print Email
পোষ্টট্যাগঃ স্বাস্থ্য অধিদপ্তর,

পাঠকদের মন্তব্যঃ ( 1)

  1. Dr. Sher Mostafa Sadiq Khan says:

    We have a firm faith and believe on you. We are always support you against this type of yellow journalism.




Time limit is exhausted. Please reload the CAPTCHA.

Advertisement
Advertisement
Advertisement
.