• অতিথি লেখা

August 26, 2017 1:05 am

প্রকাশকঃ

লিখেছেনঃডা.মোবাশ্বের আহমেদ নোমান
এসিস্টেন্ট রেজিস্টার,রংপুর আর্মি মেডিকেল কলেজ

পেটের ভিতরেই গ্রাম, হিমাগার : আপনার পিত্তথলির রোগ

আসমানিদের ছোট্ট গ্রাম রসুলপুর এখন আর ছোট্ট নাই অনেক বড় আর আধুনিক হয়ে গেছে। গ্রামের দুই পাড়া থেকে দুইটি কাঁচা রাস্তা এসে মোড়ে মিলিত হয়ে আরো প্রশস্ত ও পাকা হয়ে শহরে চলে গেছে। মোড় থেকে একটু এগোলেই হাতের ডান দিক থেকে হিমাগার এর একটি রোড এসে পাকা রাস্তায় এসে মিশে গেছে।
হিমাগারে কি থাকে?
received_10210055563173489
আবার জিগায়! কেন? রসুলপুর গ্রামে উৎপন্ন বিভিন্ন শব্জি আলু এসে জমা হয় হিমাগারে। প্রয়োজন অনুসারে শহরে যায় এসব তরি তরকারি।
বুঝেছেন? যদি বুঝে থাকেন তবে পিত্তথলির রোগগুলো সহজেই বুঝবেন 🙂
ধরুন, হিমাগার থেকে একটা বড় আলুর ট্রাক এসে হিমাগারের রাস্তাটি ব্লক করে ফেলল। আর সামনে আগানো যাচ্ছে না (ছবির ১ এ ব্লক) কি ঘটবে?
যেহেতু একটাই রোড। হিমাগারের সাথে যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন। হিমাগারে থাকা মানুষগুলো চিল্লাপাল্লা করবে। তারা গাড়িটাকে ধাক্বা দিয়ে সরাতে চেষ্টা করবে। না সরাতে পারলে হিমাগারের দেয়াল ভেংগে বের হতে চাইবে।
এই যে দেয়ালে ধাক্বা দিচ্ছে এতে আপনি পেটের ডানদিকে উপরে ব্যাথা পাবেন। কেন?
কারন ঐ গ্রাম ঐ হিমাগার আর ট্রাক সবই যে আপনার পেটের ভিতর!
রসুলপুর গ্রাম আপনার কলিজা (লিভার) , হিমাগার পিত্তথলি ( গল ব্লাডার) ট্রাক হচ্ছে পিত্ত থলির পাথর আর হিমাগারে আটকে পড়া মানুষগুলো পিত্তরস (বাইল) 🙂
শহরের কি অবস্থা?
শহরে এখন আর হিমাগারে জমানো শব্জি যায় না। গ্রাম থেকে কিছু কিছু করে যায়। হঠাৎ বেশী সাপ্লাই দরকার হলে গ্রাম থেকে সাপ্লাই দেওয়া যায় না। কারন হিমাগারের রাস্তা বন্ধ। শহরে ( অন্ত্রে) গ্যাঞ্জাম ( হজমে) লেগে গেছে 🙂
অবশেষে অনেক চেষ্টা করে ট্রাক টিকে আবার ব্যাকগিয়ারে হিমাগারে ফেরত পাঠানো হলো। বেঁচে গেলাম।
হিমাগারের মানুষগুলো দেয়াল ধাক্কানো বাদ দিয়ে ফাঁকা রাস্তা দিয়ে বেরিয়ে এলো। কি মজা! আপনার ব্যাথাও শেষ।
আচ্ছা যদি ট্রাক ( পাথর) এসে ঐ রাস্তা ব্লক না করে?
তাহলে ব্যাথাও হবে না 😞 ট্রাকগুলো (পাথরগুলো) চুপচাপ হিমাগারের ভিতরে থাকবে। রোগের কোন লক্ষণ ও পাওয়া যাবে না।
এত্তগুলো ঘটনাকে কেন্দ্র করে যে রোগটি ঘটল তার সহজ নাম কোলেলিথিয়াসিস ( পিত্ত থলির পাথর) ।

আর যদি ট্রাক ( পাথর) টিকে সরানো না যায়?
তাহলে হিমাগারের মানুষগুলো দেয়াল ভাংগার চেষ্টা করতেই থাকবে মানে একটানা ব্যাথা করতেই থাকবে। হিমাগারের ভিতরে কিছু খারাপ মানুষ ( জীবানু) আরো বিশৃঙ্খলা করবে। এমনকি হিমাগারের দেয়াল ভেংগেও ( পিত্ত থলি ফুটো হয়ে যাওয়া) যেতে পারে।
আর এই ঘটনাগুলোকে বলে কোলেসিস্টাইটিস ( পিত্তথলির প্রদাহ) 🙂
কত্ত সহজ তাই না?
আচ্ছা যদি ট্রাকটি আর একটু এগিয়ে পাকা রাস্তা (২ নং চিহ্নিত) ব্লক করে?
তাহলে কি হবে?
থাক পরের পর্বে শিখব 🙂

শেয়ার করুনঃ Facebook Google LinkedIn Print Email
পোষ্টট্যাগঃ

পাঠকদের মন্তব্যঃ ( 0)




Time limit is exhausted. Please reload the CAPTCHA.

Advertisement
Advertisement
Advertisement
.