রেসিডেন্সি সমাচার

৩ নভেম্বর ২০১৯:

আগামী শুক্রবার রেসিডেন্সি পরীক্ষা। বহুল প্রতিক্ষার, ত্যাগ তিতিক্ষার এই পরীক্ষাকে সামনে রেখে শেষ মুহূর্তের কিছু টিপ্স:

* দিলীপ স্যারের মতে, এখানে মেধার চেয়ে বেশি ইম্পর্ট্যান্ট লাক। ০.১ মার্কের জন্য রেজাল্টে ডিফারেন্স এসে যায়। যে বুদ্ধি করে সাব্জেক্ট আর সেই অনুযায়ী ইন্সটিটিউট সিলেকশন দেবে, প্লাস যে ৩ ঘন্টা ফুল ঠান্ডা মাথায় ১০০০ গোল্লা ভরাট করে আসবে সেই জিতবে। কাজেই রেজাল্ট আসেনি দেখে আমি ডাফার অগা মগা হয়ে গেলাম, আর ও চান্স পেয়েছে দেখে সুপার ডুপার ব্রিলিয়ান্ট এই কথার কোন ভিত্তি নাই। বেটার লাক নেক্সট টাইম।

* এডমিট কার্ড, বলপেন, পেন্সিল এসব কিছু একটা ক্লিয়ার ফাইলে এখনই গুছিয়ে রেখে দেয়া ভালো। পরীক্ষার অনুভূতি আসবে, আত্মবিশ্বাস আসবে।

* এডমিট কার্ড ২ কপি প্রিন্ট দিয়ে একটা সাথে রাখতে হবে, আরেকটা বাসায় যত্ন করে রেখে দিতে হবে। আইডি পাসোয়ার্ড রেখে দিতে হবে। যদি চান্স হয়, ভর্তির সময় এই এডমিট কার্ড লাগবে।

* এক্সাম হলে অবশ্যই ঘড়ি নিয়ে যেতে হবে।

* টাইম মেনেজমেন্টঃ ১০০০ বৃত্ত ভরাট করতে হয়, ২০০ প্রশ্ন, সময় তিন ঘন্টা (১৮০ মিনিট)। সব হিসাব করে, ১৫ মিনিটে ১৭ টা প্রশ্ন উত্তর করতে হবে, এভাবেই আগাতে হবে। নাহলে টাইম মেনেজ হয় না।

* কোন প্রশ্ন ছেড়ে আসা যাবেনা। নেগাটিভ মার্কিং থাকলেও সেটা নগন্য। কোন প্রশ্ন না পারলে সব ট্রু দাগায় আসবেন। তিনটা ট্রু ওয়ালা প্রশ্ন বেশি থাকে। ২ টা ভুল হলেও শেষে নাম্বার বাড়বে।

* ইন্সট্রাকশানে লেখা থাকে ২বি পেন্সিল দিয়ে ফিলাপ করতে। তবে অনেকেই ৩বি/৪বি দিয়ে ফিলআপ করে। আরো তাড়াতাড়ি ফিলাপ করা যায়।

* ৩/৪ টা পেন্সিল দুইমাথা শার্প করে নিয়ে যাওয়া ভাল। একমাথা ভেংগে গেলে/ভোঁতা হয়ে গেলে অপর মাথা দিয়ে চলে। সময় বাঁচে।

* কোন জায়গায় বলপেন, কোন জায়গায় পেন্সিল খুব ভালো করে লেখা থাকে। সেটা ফলো করলেই হবে৷

* রাবার ২/৩ টা নিয়ে যেতে হবে। ডাস্ট ফ্রি হলে ভালো হয়। ফেবার ক্যাসেল/ ম্যাটাডোর ভালো। আশে পাশের কেউ যদি ভুলেও যায় রাবারের কথা, আপনার কাছে অতিরিক্ত থাকলে তাকে দিয়ে অনেক উপকার করতে পারবেন।

* এই সময় নতুন কোন জিনিস পড়া যাবে না। যা পড়া আছে, সেটাই দেখে যেতে হবে৷

* সাথে ব্যাগ নিয়ে যাওয়া যায়, মোবাইলও নিয়ে যাওয়া যায়, তবে সামনে জমা দিয়ে আসতে হয়।

* রোল নং প্লাস আরো বিভিন্ন জিনিস ফিলাপের জন্য, কোন কোন হলে ১০ মিনিট আগে ওএমআর ফর্ম দিয়ে দেয়, কোন কোন হলে ঐ তিন ঘন্টার মধ্যেই ফিলাপ করায়।

* সাথে করে অবশ্যই পানি, লজেন্স, একটা ছোট বোতলে জুস নিয়ে যেতে হবে।

* রেজাল্ট সাধারনত সন্ধ্যা ৭/৮টার মধ্যে দিয়ে দেয়। তবে গতবছর রাত ১০টার পর দিয়েছে।

বহুল আকাংখিত রেসিডেন্সির স্বপ্ন সবার পূর্ণ হোক। সবার জন্য শুভকামনা আর অল দ্যা বেস্ট।

ডা. সাগুফতা মেহজাবিন
প্রাক্তন রেসিডেন্ট (মার্চ’১৬, ল্যাবরেটরি মেডিসিন বিভাগ, বিএসএমএমইউ)

Platform

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Time limit is exhausted. Please reload the CAPTCHA.

Next Post

বাস উল্টে পানিতে: মেডিকেল শিক্ষার্থীর মৃত্যু

Sun Nov 3 , 2019
৩ নভেম্বর ২০১৯: আজ ৩ নভেম্বর ২০১৯ রোজ রবিবার সকালে সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত হন এনাম মেডিকেল কলেজের শেষ বর্ষের ছাত্রী রশ্নি (ইন্না লিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি র’জিউন)। এনাম মেডিকেল কলেজের EM13 ব্যাচের ১২ জন শিক্ষার্থী সাজেক থেকে ট্যুর শেষে রাতের বাসে করে ঢাকায় ফিরছিলেন। শিক্ষার্থীরা ছিলেন – রশ্নি, আলভী, বুশরা, […]

সাম্প্রতিক পোষ্ট