৫৭ বছর ধরে বিনামূলে চিকিৎসা সেবা দিয়ে আসছেন সলিমুল্লাহ মেডিকেলের ডা. আ. মান্নান ।

ময়সনসিংহের গৌরীপুরে বিনামূল্যে ৫৭ বছর ধরে চিকিৎসা সেবা দিয়ে আসছেন প্রবীণ চিকিৎসক ডা. আ. মান্নান ।

গতকাল রবিবার ময়মনসিংহের গৌরীপুর পৌর শহরের নয়াপাড়ায় চিকিৎসা নিতে আসা মানুষের ভিড় ঠেলে কক্ষে প্রবেশ করে দেখা গেল বৃদ্ধ বয়সেও রোগী আর অসুস্থ মানুষের সেবায় নিয়োজিত তিনি। সকাল থেকে ৬৭ জন রোগীর ব্যবস্থাপত্র দিয়েছেন। বাক্সে জমা পড়েছে মাত্র ৪৬০টাকা। কে কতো দিয়েছে, তা জানা নেই। বাসার সামনে বসে আছেন ওষুধ কোম্পানির কুড়িজনের মতো প্রতিনিধি। তাদের দেয়া সৌজন্য ওষুধ দিয়ে দিচ্ছেন অসুস্থদের।

সারা জীবন মানবসেবা দিলেও রাখেননি হিসাব। তবে গড়ে দৈনিক ৭৫ জন হলে ৫৭ বছরে প্রায় ১৫ লাখ মানুষকে চিকিৎসা সেবা দিয়েছেন তিনি। জীবনে সরকারি ছুটি আর উৎসবের দিনেও চিকিৎসা বন্ধ করেননি।

গৌরীপুরের ইতিহাস ও ঐতিহ্যে গ্রন্থের লেখক রণজিৎ কর বলেন, তিনি শুধু বিনামূল্যে ব্যবস্থাপত্র দেননি, অনেককে ওষুধ ক্রয়ের টাকাও দিয়েছেন। প্রকৃত অর্থেই একজন সমাজ হৈতষী।

উপজেলার বোকাইনগর ইউনিয়নের শেখ আব্দুল করিম ও শেখ নেকজান বিবির পুত্র আ. মান্নান। শিক্ষার সনদে জন্ম তারিখ ২ জানুয়ারি ১৯৩৬। আর.কে উচ্চ বিদ্যালয় থেকে ১৯৫৩ সালে ম্যাট্রিক পাস করেন। ঢাকার সলিমুল্লাহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল থেকে ডাক্তারী পাস করে ১৯৬০ সাল থেকে চিকিৎসা সেবা পেশা শুরু করেন। মায়ের আদেশ পালন করতেই তিনি জন্মভূমি ছেড়ে সরকারি চাকরি বা দূরে চিকিৎসা সেবা দিতে যাননি। দাম্পত্যজীবনে তিনি ৫ কন্যা ও ৩ পুত্রের জনক।

ডা. আব্দুল মান্নান বলেন, ডাক্তার মানেই সেবা। যারা আজ ডাক্তার হচ্ছেন, তাদের সেবার মনোভাব শূন্যতায় পৌঁছে যাচ্ছে।

নতুন প্রজন্মের ডাক্তারদের জন্য তিনি লিখেছেন ‘বাংলাদেশের চিকিৎসা বিভ্রাট ও প্রতিকার’ নামক একটি বই। আজ বয়সে তিনি প্রবীণ। মন, কর্ম ও মানুষের সেবার মানসিকতায় রয়েছে তারুণ্যের গতি।

সূত্রঃ সংবাদ প্রতিদিন।

প্ল্যাটফর্ম ওয়েব

7 thoughts on “৫৭ বছর ধরে বিনামূলে চিকিৎসা সেবা দিয়ে আসছেন সলিমুল্লাহ মেডিকেলের ডা. আ. মান্নান ।

  1. তার সংসার চলে কিভাবে?
    ছেলে মেয়েদের পড়ালেখার খরচ যোগায় কে??
    তিনি যে গাড়িতে চলেন সেটা কি পানিতে চলে নাকি তেলে???
    মাগনা চিকিতসা হলো সেবা আর পয়সা নিলে সেটা ব্যাবসা এই তত্তটা ডাক্তার সাহেবের নাকি রিপোর্টারের????
    দৈনিক ৭৫ জন রুগি দেখাও বৈধ যদি ফ্রি দেখেন কিন্তু পয়সা নিলে ১০ জনের বেশি রুগি দেখাও অন্যায়। আপনার প্রফেশনালিজম কিছুই না অনলি মানি ম্যাটার… আমরা এই রিপোর্টারের পিঠ চাপড়ে দেই!!!! হায়রে ডাক্তার সমাজ।
    আমরা আজো পাবলিককে বুঝাইতে পারলাম না প্রফেশনালিজম কি জিনিশ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Time limit is exhausted. Please reload the CAPTCHA.

Next Post

ইব্রাহিম মেডিকেলের বানানো শর্ট ফ্লিম 'history of present illness'

Tue Oct 18 , 2016
কলেজ চত্বর পেরিয়ে একটি ছাত্র যখন মেডিকেল কলেজে ঢুকে দু মাস ক্লাস করে, তখন সে অনুধাবন করতে পারে তার জীবনের অনেক কিছু্ পরিবর্তন হয়ে গেছে। এরপর থেকে পেঁচিয়ে যায় মেডিকেলীয় গোলক ধাঁধায়। বিভিন্ন শিক্ষার্থীর বিভিন্ন সমস্যা তাদের এক পর্যায়ে ডিপ্রেশনে নিয়ে যায়। কিন্তু তারা একটা সময় গিয়ে বুঝতে পারে এমন […]

সাম্প্রতিক পোষ্ট