• নিউজ

January 6, 2019 9:21 pm

প্রকাশকঃ

 

৬ জানুয়ারি,২০১৯, রোববার।

আজ রোববার বিকাল ৫টায় সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে, নবনিযুক্ত মন্ত্রী-প্রতিমন্ত্রীদের নাম প্রকাশ করেছেন, মন্ত্রিপরিষদ সচিব মোহাম্মদ শফিউল আলম ।

বাংলাদেশের ইতিহাসে এভাবে আগে কখনও মন্ত্রিসভার সদস্যদের নাম, শপথের আগে সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে প্রকাশ করা হয়নি। পূর্বে দেখা গেছে, মন্ত্রীসভায় কারা থাকছেন তাদের চূড়ান্ত তালিকা জানতে শপথ পর্যন্ত অপেক্ষা করতে হত।
এদিকে মন্ত্রীপরিষদ বিভাগ শপথের জন্য সকল প্রকার প্রস্তুতি ইতোমধ্যে শেষ করেছে। সোমবার বিকাল সাড়ে ৩টায় বঙ্গভবনে এই শপথ অনুষ্ঠান হবে বলে আগেই ঘোষণা দেওয়া হয়েছে।

সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে এরই মধ্যে জানা গেছে, নতুন স্বাস্থ্যমন্ত্রী হতে যাচ্ছেন জনাব জাহিদ মালেক এবং প্রতিমন্ত্রি হচ্ছেন ডাঃ মুরাদ হাসান।

 

কে এই জাহিদ মালেক?

পুরো নাম আলহাজ্ব জাহিদ মালেক স্বপন। ২০১৪ সালে  গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী হিসাবে নিযুক্ত হয়েছিলেন ।

স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ প্রতিমন্ত্রী জনাব জাহিদ মালেক, এমপি, মানিকগঞ্জ জেলার সদর উপজেলার এক সম্ভ্রান্ত মুসলিম পরিবারে ১৯৫৯ সালের ১১ এপ্রিল জন্মগ্রহণ করেন। তাঁর পিতা মরহুম কর্ণেল (অবঃ) এ, মালেক ছিলেন ঢাকা সিটি কর্পোরেশনের সাবেক মেয়র এবং বস্ত্র ও পাট মন্ত্রণালয়ের মাননীয় মন্ত্রী। তিনি একজন বিশিষ্ট রাজনীতিবীদ ও সমাজসেবক। তাঁর মাতার নাম ফৌজিয়া মালেক।

 

বাংলাদেশ আওয়ামী-লীগের সংসদ সদস্য জনাব জাহিদ মালেক ২০১৪ সালে সংসদীয় আসন মানিকগঞ্জ-৩ থেকে নির্বাচিত জাতীয় সংসদ সদস্য। এছাড়া ২০০৮ সালেও তিনি একই আসন থেকে  সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন। তিনি ২০১৪ সালের ১২ জানুয়ারী গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী হিসাবে শপথ গ্রহণ করেন।

 

জনাব জাহিদ মালেক ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ইংরেজী সাহিত্য ও সংস্কৃতি বিষয়ে সম্মানসহ স্নাতক এবং স্নাতকোত্তর ডিগ্রী অর্জন করেন। জনাব জাহিদ মালেক রাজনীতির পাশাপাশি বিভিন্ন সমাজ কল্যাণ কাজের সাথেও প্রত্যক্ষ এবং পরোক্ষভাবে জড়িত রয়েছেন। তিনি ঢাকাসহ মানিকগঞ্জের বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠান, ধর্মীয় প্রতিষ্ঠান, সমাজ উন্নয়নমূলক প্রতিষ্ঠান স্থাপনে অগ্রণী ভূমিকা রেখে চলেছেন। তিনি দেশের একজন স্বনামধন্য বিশিষ্ট ব্যবসায়ী। ইতিপূর্বে ১৯৮৪ সাল থেকে ২০১৪ সাল পর্যন্ত তিনি বাংলাদেশ থাই এ্যালুমিনিয়াম লিঃ, সানলাইফ ইন্স্যুরেন্স কোম্পানী লিঃ, বিডি থাইফুড এন্ড বেভারেজ লিঃ, রাহাত রিয়েল এস্টেট এন্ড কন্সট্রাকশন লিঃ, বিডি সানলাইফ ব্রোকারেজ হাউজ লিঃ এর চেয়ারম্যান হিসেবে সফলতার সাথে দায়িতব পালন করেছেন। সেবামূখী গতিশীল স্বাস্থ্যখাত প্রতিষ্ঠায় দেশে এবং আন্তর্জাতিক অঙ্গনে তিনি বর্তমানে কাজ করে চলেছেন। স্বাস্থ্যখাতে সুশাসন প্রতিষ্ঠা ও ব্যবস্থাপনায় দক্ষতা আনয়নে তিনি গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রেখে চলেছেন। তিন সন্তানের জনক জনাব জাহিদ মালেক এর সহধর্মীনির নাম মিসেস শাবানা মালেক।

তিনি যে সকল কল্যাণমূলক প্রতিষ্ঠানসমূহ প্রতিষ্ঠা ও পরিচালনায় নিয়োজিত সেগুলো হলো – (i) কর্ণেল মালেক উচ্চ বিদ্যালয় (ii) কর্ণেল মালেক সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় (iii) ফৌজিয়া মালেক সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় (iv) জাহিদ মালেক সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, মানিকগঞ্জ (v) মালেকিয়া আশ্রাফুল উলুম মাদ্রাসা, হরগজ, মানিকগঞ্জ (vi) ইছাতুন্নেছা ফোরকানিয়া মাদ্রাসা, নবগ্রাম, পৌরসভা এলাকা, মানিকগঞ্জ (vii) জরিনা খানম জামে মসজিদ, গড়পাড়া, মানিকগঞ্জ।

সরকারি গুরুত্বপূর্ণ প্রতিষ্ঠান স্থাপন -১৪টি বড় ব্রীজ, বহু সংখ্যক ছোট ব্রীজ ও কালভার্ট, প্রায় ৮৫ কিঃ মিঃ পাকা রাস্তা নির্মাণ ও উন্নয়ন, মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতাল, নার্সিং ইনস্টিটিউট, কৃষি ইনস্টিটিউট, রেজিষ্ট্রি ভবন এবং মানিকগঞ্জ জেলার বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ প্রতিষ্ঠান।

 

তিনি ইতিপূর্বে সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সদস্য হিসেবে পররাষ্ট্র ও শিল্প মন্ত্রণালয় সংক্রান্ত স্থায়ী কমিটিতে গুরুত্বপূর্ণ দায়িত্ব পালন করেন।

তিনি বিশ্বের প্রায় ৩০ টি দেশ ভ্রমণ করেছেন।

 

তথ্যঃ বাংলাদেশ জাতীয় তথ্য বাতায়ন

শেয়ার করুনঃ Facebook Google LinkedIn Print Email
পোষ্টট্যাগঃ স্বাস্থ্যমন্ত্রী,

পাঠকদের মন্তব্যঃ ( 0)




Time limit is exhausted. Please reload the CAPTCHA.

Advertisement
Advertisement
Advertisement
.