বিশ্ব সেপসিস দিবস ২০১৯: সেপসিস চিহ্নিত করুন, জীবন বাঁচান

২০১২ সাল থেকে গ্লোবাল সেপসিস এলায়ন্স এর উদ্যোগে প্রতি বছর ১৩ সেপ্টেম্বর বিশ্ব সেপসিস দিবস পালিত হচ্ছে। এ দিবসের উদ্দেশ্য হলো সেপসিস বিষয়ে চিকিৎসক সমাজ ও জনগণকে সচেতন করে তোলা।

সেপসিস
সেপসিস একটি প্রাণহানিকর অবস্থা। কোনো ইনফেকশনের বিরুদ্ধে মানবদেহের প্রতিক্রিয়া যদি দেহেরই বিভিন্ন কোষ ও অঙ্গহানি করে, তাকেই সেপসিস বলে।

সেপসিস এর লক্ষণ
১। অস্বাভাবিক তাপমাত্রা (জ্বর/নিম্ন তাপমাত্রা)
২। ইনফেকশনের লক্ষণ
৩। মানসিক দুর্বলতা
৪। শাসপ্রশ্বাসের হার বেড়ে যাওয়া
৫। পালস বেড়ে যাওয়া
৬। শ্বাসকষ্ট
৭। মূত্রের পরিমাণ কমে যাওয়া
৮। ত্বকে জায়গায় জায়গায় রং পরিবর্তন হওয়া
৯। প্রচন্ড কাঁপুনি ও মাংসপেশিতে ব্যথা
১০। মৃত্যুভয় ইত্যাদি

সেপসিস ধারণা করলে যত দ্রুত সম্ভব চিকিৎসকের পরামর্শ গ্রহণ করা প্রয়োজন। কারণ, চিকিৎসা গ্রহণে প্রতি ঘণ্টা বিলম্বের জন্যে মৃত্যুঝুঁকি ৮% বেড়ে যায়। মধ্যবয়সে ও বৃদ্ধ বয়সে সেপসিসের সম্ভাবনা সবচেয়ে বেশি। একটি জরিপে দেখা গেছে সেপসিসের ৮০% রোগীর বয়সই ৫০ এর উপরে।

সামিউন ফাতীহা
শহীদ তাজউদ্দীন আহমদ মেডিকেল কলেজ, গাজীপুর

Platform

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Time limit is exhausted. Please reload the CAPTCHA.

Next Post

স্বাস্থ্যসেবায় চিকিৎসক সংকট নিরসনে প্রস্তাবনা

Fri Sep 13 , 2019
গত ২০ ফেব্রুয়ারি ২০১৮ তারিখে তৎকালীন মাননীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম সংসদে জানিয়েছিলেন, দেশের সরকারি স্বাস্থ্য প্রতিষ্ঠানে চাকরিরত একজন চিকিৎসকের বিপরীতে চিকিৎসাপ্রার্থী মানুষের সংখ্যা ৬ হাজার ৫৭৯ জন। আর বিএমডিসি থেকে সনদপ্রাপ্ত (সরকারি-বেসরকারি) ডাক্তারের সম্মিলিত অনুপাতে একজন চিকিৎসকের বিপরীতে সেবাপ্রার্থী ১ হাজার ৮৪৭ জন। সংসদের অধিবেশনে প্রশ্নোত্তর পর্বে তিনি আরও বলেন, […]

সাম্প্রতিক পোষ্ট