• sticky

December 26, 2016 12:43 pm

প্রকাশকঃ

বিডি ইএমআর-মানে বাংলাদেশ ইলেক্ট্রোনিক মেডিক্যাল রেকর্ড। বাংলাদেশের প্রথম ইএমআর এর নামের সাথে বাংলাদেশ নামটাও জড়িত থাকবে-এটাই মনে প্রাণে চেয়েছেন এপসটির নির্মাতা প্রবাসী চিকিৎসক ডাঃ অসিত বর্ধন। গত তিন বছরে বাংলাদেশ, কানাডা, অস্ট্রেলিয়া সহ বেশ কয়েকটি দেশের একদল বাংলাদেশী চিকিৎসক, কম্পিউটার বিশেষজ্ঞ এপস নির্মাতার অক্লান্ত পরিশ্রমের ফসল বিডিইএমআর এপস গুগল প্লে স্টোরে বিনামূল্যে উন্মুক্ত করে দেয়া হলো বিজয় দিবসের প্রাক্কালে গত ১৫ই ডিসেম্বর।

ইএমআর ধারণাটি পাশ্চাত্যে চিকিৎসা সেবার একটি অবিচ্ছেদ্য অংশ হলেও বাংলাদেশে একদমই নতুন। নতুন হলেও শুধু মাত্র ইএমআর প্রচলন করা গেলে বাংলাদেশের চিকিৎসা সেবায় আমূল পরিবর্তন আসবে, চিকিৎসকের জন্য যেমন চিকিৎসা প্রদান সহজ হবে, রোগীর ক্ষেত্রেও চিকিৎসকের সেবা গ্রহণ, রোগ নির্ণয়-চিকিৎসা সংক্রান্ত ভোগান্তি ও ব্যয় কমে আসবে। ইএমআর সম্পর্কে সাধারণ কিছু তথ্য যা চিকিৎসক ও সাধারণ মানুষের জন্য গুরুত্বপূর্ণ হতে পারেঃ123

345

১ ইলেক্ট্রোনিক মেডিক্যাল রেকর্ড হলে প্রত্যেক রোগীর চিকিৎসা সংক্রান্ত সকল ব্যক্তিগত তথ্য যেমনঃ রোগীর নাম, ঠিকানা, যোগাযোগের নম্বর, রোগীর শারীরিক তথ্যঃ উচ্চতা, ওজন, রক্তচাপ, নাড়ীর গতি, রোগের বিস্তারিত ইতিহাসঃ রোগী ইতিপূর্বে যতবার চিকিৎসকের কাছে গেছেন যে যে শারীরিক অসুবিধা নিয়ে গেছেন তার খুঁটিনাটি বিস্তারিত বর্ণ্না, রোগীর সকল পূর্বের ইনভেস্টিগেশন টেস্টের রেসাল্ট, রোগীর সকল প্রেস্ক্রিপশন ও ওষুধের নাম, ডোজ, সেবন বিধি, টিকা গ্রহণ ইত্যাদি।

২ যে সব রোগীর দীর্ঘস্থায়ী অসুখ থাকে তাঁদের ওষুধ সেবন, চিকিৎসকের ফলোয়াপে যাওয়া, নতুন পরীক্ষার ক্ষেত্রে পূর্বের পরীক্ষার সাথে তুলনা। রোগীর ধারাবাহিক উন্নতি সহ ইএমআর এ সংরক্ষিত তথ্য রোগীর চিকিৎসায় সহায়ক হয়।

বিডিইএমআর এপসে এ সকল সুবিধা তো থাকছেই এর সাথে রক্তচাপ, ব্লাড সুগার এর ফল ও যে কোনো পরীক্ষার ফল ফোনের মাধ্যমে সেভ করে রাখা যাবে। এখন যে সমস্ত ওষুধ খাচ্ছেন সেটাও যোগ করা যাবে। ওষুধ কয়টা খাওয়া হোলও, আর কয়টা বাকি আছে সেটা জানাবে। ডোজ বাদ পরলে সেটাও জানাবে। যারা মাঝে মাঝে ভুলে যান তাদের জন্য এটা খুব উপযোগী। ডাক্তারের কাছে গেলে তখন ডাক্তার তাঁর কম্পিউটারে বা ফোনে সেই তথ্য দেখতে পাবেন। (চিকিসকের জন্য যে এপ তৈরি হচ্ছে তার নাম Doctor App) এটার ডাউন লোড সম্পূর্ণ ফ্রি। আবার বিভিন্ন প্যাথলজি থেকে যে রিপোর্ট করা হবে সেটাও এই ফোনে , ট্যাবলেটে, বা কম্পিউটারে দেখা যাবে। চিকিৎসক নিজের চেম্বারে বসেই সেটা দেখতে পাবেন। এতে চিকিৎসক ও রোগীর মধ্যে যোগাযোগ সহজ হবে, খরচ কমবে, সময় বাঁচবে।

কেন বিনামূল্যে বিডিইএমআর এপস একটি অর্জনঃ
বাংলাদেশের চিকিৎসা সেবা মূলত প্রতিষ্ঠান(হাসপাতাল) ও ব্যাক্তি(ব্যক্তিগত চেম্বার) কেন্দ্রিক। এখানে ব্যক্তি হিসেবে চিকিৎসা সেবা ব্যক্তি কেন্দ্রিক নয়। রোগি হিসেবে একজন ব্যক্তির যে বাড়তি যত্ন পাওয়া উচিত বাংলাদেশে রোগির চাপ অত্যাধিক হওয়ায় সেটি সম্ভব হয় না। যেমন রোগী প্রতি বেলা ওষুধ সেবন নিশ্চিত করা(যেটা প্রেস্ক্রিপশন দেয়ার সময় চিকিৎসক/চিকিৎসা সহকারী/ফার্মাসিস্ট/ওষুধের দোকানদার) ওষুধের ব্যবহার বিধি শিখিয়ে দেয়ার কথা। এর অভাবে বাংলাদেশে প্রায় ৫০% রোগীর ক্ষেত্রে ওষুধ ভুল ভাবে, অপর্যাপ্ত ভাবে সেবন করা হয় যার ফলাফল রোগীকে ভোগ করতে হয়ে। বিডিইএমআর এর মাধ্যমে আপনার প্রেস্ক্রিপশনটি আপনার স্মার্টফোন, ল্যাপটপ, বা ডেস্কটপে সংরক্ষিত থাকলে
স্বয়ংক্রিয়ভাবে ওষুধ খাবার সময় রিমাইন্ডার দেবে।

শুধু রোগীর জন্যই নয়, চিকিৎসকদের এপস এ এরকম কয়েকশত ফিচার(সার্জারি/মেডিসিন/গাইনি/জেনারেল প্র্যাক্টিশনার সহ সকল বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকদের জন্য তাঁদের পেশাগত প্রয়োজনের বিশেষায়িত চাহিদা অনুসারে ফিচার), পোস্ট গ্র্যাজুয়েট ট্রেইনিদের জন্য লগবুক, ইন্টার্ন চিকিৎসক ও মেডিকেল স্টুডেন্টদের জন্য কেস সংরক্ষণের ব্যবস্থা, নার্স ও অন্যান্য স্বাস্থ্য সেবা সহায়ক ব্যক্তিদের জন্য বিভিন্ন ফিচার দেয়া আছে। পাশ্চাত্য দেশগুলোতে এধরণের এপস এবং ব্যবস্থা বেশ ব্যয়বহুল এবং আলাদা করে হাসপাতাল, প্রতিষ্ঠান, রোগী এবং চিকিৎসক কে কিনতে হয়। কিন্তু বাংলাদেশী চিকিৎসক ডাঃ অসিত বর্ধন বাংলাদেশীদের জন্য এটি সম্পূর্ণ বিনামূল্যে ব্যবহারের ব্যবস্থা করেছেন, একারণেই এটি একটি অর্জন। ইতিমধ্যে বিশ্বের বিভিন্ন দেশে মেডিকেল কনফারেন্স এ এপটি প্রদর্শিত হয়েছে এবং প্রশংসিত হয়েছে।

চিকিৎসক ও মেডিকেল শিক্ষার্থীদের উদ্যোগ প্ল্যাটফর্ম আনুষ্ঠানিকভাবে বিডিইএমআর এর সাথে যুক্ত হয়েছে গত ২২ ডিসেম্বর। বিডিইএমআর এপস কে বাংলাদেশের সকল চিকিৎসক ও মেডিকেল স্টুডেন্টদের কাছে পৌঁছে দিতে বিডিইএমআর ও প্ল্যাটফর্ম একত্রে কাজ করবে। Download https://play.google.com/store/apps/details?id=com.bdemr.patient
ডাঃ মোহিব নীরব,
প্ল্যাটফর্ম।

শেয়ার করুনঃ Facebook Google LinkedIn Print Email
পোষ্টট্যাগঃ

পাঠকদের মন্তব্যঃ ( 2)




Time limit is exhausted. Please reload the CAPTCHA.

Advertisement
Advertisement
.