• গুনী মানুষ

December 25, 2017 12:39 pm

প্রকাশকঃ

 

25446201_2067162460186761_5310335620124370585_n

চিকিৎসা শেষে বাসায় ফিরছেন মুক্তিযোদ্ধা ও প্রখ্যাত ভাস্কর ফেরদৌসী প্রিয়ভাষিণী। তাঁর  চিকিৎসার বিষয়ে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয় সব সময় পাশে থাকবেন বলে আশ্বাস দিয়েছেন উপাচার্য অধ্যাপক ডা. কামরুল হাসান খান।

 

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়ের ৫১২নং কেবিনে চিকিৎসাধীন মুক্তিযোদ্ধা ও বাংলাদেশের প্রখ্যাত ভাস্কর ফেরদৌসী প্রিয়ভাষিণী অনেকটাই সুস্থ হয়ে বাসায় ফিরে গেছেন। সেখানে ভর্তি থাকাকালীন ১৯৪৭ সালে জন্ম নেয়া বাংলাদেশের এই গুণী মানুষটির চিকিৎসাসেবার বিষয়টি সরাসরি তত্ত্বাবধান করছেন মাননীয় উপাচার্য অধ্যাপক ডা. কামরুল হাসান খান।

গত ২০ ডিসেম্বর ২০১৭, বুধবার, দুপুরে বাসায় যাওয়ার আগে মাননীয় উপাচার্য অধ্যাপক ডা. কামরুল হাসান খান প্রখ্যাত ভাস্কর ফেরদৌসী প্রিয়ভাষিণীর কপালে তাঁর পরম মমতার হাত বুলিয়ে দেন এবং সেখানে কিছুক্ষণ অবস্থান করে চিকিৎসাসেবার খোঁজ-খবর নেন।

এসময় মাননীয় উপাচার্য বলেন, “আপনার (ফেরদৌসী প্রিয়ভাষিণী) চিকিৎসা সেবার বিষয়ে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয় সব সময় পাশে রয়েছে। চিকিৎসার জন্য যখন যা প্রয়োজন হয়, বলবেন। আমরা সাধ্যমত চেষ্টা করবো। এ বিশ্ববিদ্যালয়ের সম্মানিত চিকিৎসকবৃন্দ আপনার পাশে আছেন।”

 

 

25498396_2067162583520082_4212997675723463303_n

 

 

এসময় আরও উপস্থিত ছিলেন বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়ের সম্মানিত কোষাধ্যক্ষ অধ্যাপক ডা. মোহাম্মদ আলী আসগর মোড়ল, প্রক্টর অধ্যাপক ডা. মোঃ হাবিবুর রহমান দুলাল এবং হাসপাতাল পরিচালক  বিগ্রেডিয়ার জেনারেল মোঃ আব্দুল্লাহ আল হারুন ।

 

 
উল্লেখ্য, প্রখ্যাত ভাস্কর ফেরদৌসী প্রিয়ভাষিণী ভর্তি থাকাকালীন মাননীয় উপাচার্য অধ্যাপক ডা. কামরুল হাসান খান প্রত্যেক দিন দু’বার করে দেখতে গিয়েছেন ও তাঁর চিকিৎসাসেবার খোঁজখবর নিয়েছেন। যখনই প্রয়োজন হয়েছে বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকদের ডেকেছেন এবং তাঁরই নির্দেশে গত ১৩ই ডিসেম্বর  ৯ সদস্য বিশিষ্ট মেডিক্যাল বোর্ড গঠন করা হয়।

এর আগে ১০ই ডিসেম্বর অর্থোপেডিক সার্জারি বিভাগের চেয়ারম্যান অধ্যাপক ডা. নকুল কুমার দত্ত তাঁর বাম পায়ের গোড়ালির সমস্যার কারণে অস্ত্রোপচার করেন। পরবর্তী সময়ে তিনি কিছুটা বেশি অসুস্থবোধ করলে তাঁকে আইসিইউতে নেয়া হয়। এরপর ধীরে ধীরে তাঁর স্বাস্থ্যের অবস্থার উন্নতি হলে গত ১৮ই ডিসেম্বর পুনরায় তাকে  কেবিনে নিয়ে আসা হয় এবং  ২০ ডিসেম্বর  বাসায় যাওয়ার অনুমতি দেওয়া হয়।

 

আরো উল্লেখ্য, প্রখ্যাত ভাস্কর ফেরদৌসী প্রিয়ভাষিণী গত ২৩ নভেম্বর হেপাটোলজি (লিভার) বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক ডা. মামুন আল মাহতাব স্বপ্নীল এর অধীনে ভর্তি হন। তিনি দীর্ঘদিন ডায়াবেটিস, উচ্চ রক্তচাপ ছাড়াও লিভার, কিডনী, ইউরিন ও থাইরয়েডের নানা সমস্যায় ভুগছেন। এছাড়াও তাঁর বাম পায়ের গোড়ালিতে সমস্যা থাকায় অস্ত্রোপচার করা হয়।

ভর্তি থাকাকালীন মুক্তিযোদ্ধা ও প্রখ্যাত ভাস্কর ফেরদৌসী প্রিয়ভাষিণীর স্বাস্থ্য পরীক্ষা ও প্রয়োজনীয় পরামর্শসেবা প্রদান করেছেন বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়ের মেডিসিন অনুষদের ডীন অধ্যাপক ডা. এবিএম আব্দুল্লাহ, কার্ডিওলজি বিভাগের চেয়ারম্যান অধ্যাপক ডা. সজল কৃষ্ণ ব্যানার্জী, অর্থোপেডিক সার্জারি বিভাগের চেয়ারম্যান অধ্যাপক ডা. নকুল কুমার দত্ত, এ্যানেসথেশিয়া বিভাগের চেয়ারম্যান অধ্যাপক ডা. দেবব্রত বণিক, কিডনী বিভাগের চেয়ারম্যান অধ্যাপক ডা. মোঃ শহিদুল ইসলাম সেলিম, এন্ডোক্রাইনোলজি বিভাগের চেয়ারম্যান অধ্যাপক ডা. মোহাম্মদ আবুল হাসনাত, ইউরোলজি বিভাগের অধ্যাপক ডা. মোঃ হাবিবুর রহমান দুলাল, এ্যানেসথেশিওলজি বিভাগের অধ্যাপক ডা. ইকবাল হোসেন চৌধুরী ও লিভার বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক ডা. মামুন আল মাহতাব স্বপ্নীল সহ প্রমুখ।

 

ছবি: সোহেল গাজী। তথ্য: প্রশান্ত মজুমদার

শেয়ার করুনঃ Facebook Google LinkedIn Print Email
পোষ্টট্যাগঃ বিএসএমএমইউ,

পাঠকদের মন্তব্যঃ ( 0)




Time limit is exhausted. Please reload the CAPTCHA.

Advertisement
Advertisement
Advertisement
.