ঢাকা সেন্ট্রাল ইন্টারন্যাশনাল মেডিকেল কলেজে ডেংগু বিষয়ক সেমিনার

গতকাল ৭ আগস্ট ২০১৯ বুধবার ঢাকা সেন্ট্রাল ইন্টারন্যাশনাল মেডিকেল কলেজে আয়োজিত হলো ডেংগু বিষয়ে সেমিনার। সেমিনারের আলোচ্য বিষয়বস্তু ছিলো “Dengue in special situation (paediatrics & Pregnant mothers)”। উক্ত সেমিনারে প্রধান অতিথি ছিলেন মেডিসিন বিশেষজ্ঞ অধ্যাপক ডা.এ বি এম আব্দুল্লাহ।


উক্ত সেমিনারে ডা.এ বি এম আব্দুল্লাহ ডেঙ্গু বিষয়ে বেশ কিছু পরামর্শ দিয়েছেন, যার কয়েকটি উল্লেখ করা হলো:

১. এবারের ডেংগুর প্যাটারন বদলে গেছে। তাই হাল্কা জর এসে ভাল হয়ে গেলে ভাবা যাবে না যে ডেংগু হয় নি। ৩-৪ দিনের মাথায় প্লাটিলেট অনেক কমে যায়। যদি আরও অবহেলা করা হয়, তবে প্লাজমা লিকেজ হয়ে রোগী শকে চলে যায় যা কিনা এইবার ডেংগু জ্বরে মারা যাবার কারন। তাই যদি অবহেলা না করে দ্রুত চিকিৎসকের পরামর্শ নেওয়া যায় তাহলে মৃত্যুর হার ০%, যদি আল্লাহ চান।

২. জ্বর হলে paracetamol ছাড়া অন্য কোন মেডিসিন খাবেন না। যদি অন্য কোন ব্যথানাশক ঔষধ সেবন করা হয়, তাহলে রক্ত পড়া বেড়ে যাবে।যারা Aspirin clopidogrel জাতীয় ঔষধ সেবন করেন, তা বন্ধ করতে হবে।

৩. এবার ডেংগু আতংকে মানুষ যেভাবে বিভিন্ন হাসপাতাল গুলোতে ছুটছে, তাতে করে পুরো চিকিৎসা ব্যবস্থা হিমশিম খাচ্ছে। তাতে করে যাদের অবস্থা ক্রিটিকাল তারা চিকিৎসা পাচ্ছে না। তাই আমাদের সবার এই বিষয়ে খেয়াল রাখা উচিত যে জ্বর হলেই যে হাসপিটালে ভর্তি হতে হবে, তা কিন্তু না।

৪. ডেংগু জ্বরকে ৩ টা গ্রুপে ভাগ করা হয়েছে।
১ম গ্রুপ: এদের কোন ঝুকি নেই। এরা চিকিৎসকের পরামর্শ অনুযায়ী বাসায় থেকেই চিকিৎসা নিতে পারে এবং ভাল হয়ে যায়।
গ্রুপ ২ ও ৩ঃ sign symptoms plus investigation রিপোর্ট এর উপর ভিত্তি করে ভর্তি হতে হয়।

৫. ডেংগু জ্বরের জন্য antibiotics এর কোন রোল নেই। যদি ডেংগু জরের সাথে অন্যান্য রোগ থাকে, তখন দেওয়া যাবে। আর steroid ব্যবহার নিয়ে কন্ট্রোভারসি রয়েছে।

৬. ডেংগু হচ্ছে এলিট মশা। সুন্দর ঘরবাড়িতে পরিষ্কার পানিতে এদের বিস্তার। গ্রামে গঞ্জে ডেংগু থাকার কথা না। ডেংগু জর হওয়ার ৫-৬ দিনের মাথায় antibody তৈরি হয়। তাই ঢাকায় থেকে ঈদ মাটি করার কোন মানে নাই। কিন্তু যারা ঈদ যাত্রার আগে আক্রান্ত হন, তারা নিজেদের সুচিকিৎসার জন্য ঢাকা থেকে গেলেই ভাল হয়।

৭. ডেংগু জ্বর হলে পেপে পাতার রস খেলে ভাল হয়ে যাবে, এসব কথার কোন ভিত্তি নাই।

৮. ডেংগুর vaccine এখনও বের হয়নি। যেগুলা বাজারে আছে, তারও অনেক সীমাবদ্ধতা আছে।যেমনঃ ডেংগুর serotype আছে ৪ টা। একটা serotype এর vaccine নিলে আপনি আরেকটি serotype দিয়ে আক্রান্ত হতে পারেন। আবার আপনি যদি একবার ডেংগু জ্বরে আক্রান্ত হন, তাহলে vaccine নিতে পারবেন না। ৮ বছরের নিচে এবং ৪৫ বছরের উপরে vaccine নেওয়া যাবে না।তাছাড়া আরো অনেক complication আছে।

তথ্যসূত্র:
ডাঃ খালিদ হোসেন, সৈয়দ উষ্ণিশ আহমেদ
DCIMC

প্ল্যাটফর্ম ফিচার রাইটার:
সামিউন ফাতীহা
শহীদ তাজউদ্দীন আহমদ মেডিকেল কলেজ, গাজীপুর

Platform

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Time limit is exhausted. Please reload the CAPTCHA.

Next Post

পানিতে পড়ে থাকা বৈদ্যুতিক তারের সাথে লেগে চিকিৎসকের মৃত্যু

Thu Aug 8 , 2019
৮ আগস্ট ২০১৯ বৃহস্পতিবার বিকাল প্রায় ৪.০০ ঘটিকায় গ্রীনরোডে বৃষ্টির জমা পানিতে পড়ে থাকা বৈদ্যুতিক তারের সাথে লেগে বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হন ডা: পলাশ দে (২৫)। ক্রিসেন্ট গ্যাস্টোলিভার হাসপাতালে নিয়ে যাবার পর তাকে মৃত ঘোষণা করা হয়। ডা: পলাশ দে শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজের ২০১১-১২ সেশনের ছাত্র ছিলেন। তিনি সিরাজগঞ্জের শাহজাদপুর […]

সাম্প্রতিক পোষ্ট