গ্রিন লাইফ মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালে, দিনব্যাপী পালিত হলো বিশ্ব জলাতঙ্ক দিবস-২০১৮

স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের রোগ নিয়ন্ত্রন শাখা, সিডিসি’র উদ্যোগে এবং চিকিৎসক ও চিকিৎসা শিক্ষার্থীদের সংগঠন “প্ল্যাটফর্ম” এর সার্বিক সহযোগিতায় ২৯ সেপ্টেম্বর,শনিবার,২০১৮ সারাদেশের প্রায় ৪৫ টা মেডিকেল ও ডেন্টাল কলেজে এক যোগে পালিত হয় ‘বিশ্ব জলাতঙ্ক দিবস’২০১৮ ।

এরই ধারাবাহিকতায় জলাতঙ্ক রোগ নিয়ে জনসচেতনতা গড়ে তোলার জন্য গ্রিন লাইফ মেডিকেল কলেজে “জলাতঙ্কঃ অপরকে জানান, জীবন বাঁচান” প্রতিপাদ্যকে সামনে রেখে দিনব্যাপী বিভিন্ন কর্মসূচীর মধ্য দিয়ে “বিশ্ব জলাতঙ্ক দিবস-২০১৮” পালন করা হয়।

উক্ত কর্মসূচীর মধ্যে দিনের প্রথমভাগে সকাল ৯:৩০ মিনিটে মেডিকেল কলেজ প্রাঙ্গণ থেকে কলেজের শিক্ষার্থী এবং শিক্ষকবৃন্দের সমন্বয়ে একটি র‍্যালি বের হয়।

র‍্যালি উদ্বোধন করেন গ্রিন লাইফ মেডিকেল কলেজ- এর সম্মানিত প্রিন্সিপাল অধ্যাপক ডা. এম এ আজহার স্যার।

সাথে আরো ছিলেন অধ্যাপক ডা.শামসুদ্দিন আহমেদ স্যার,ভাইস প্রিন্সিপাল অধ্যাপক ডা.নুরুল ইসলাম স্যার,কমিউনিটি মেডিসিন বিভাগীয় প্রধান অধ্যাপক ডা. আশরাফ উদ্দিন আহমেদ স্যার,মাইক্রোবায়োলজি বিভাগীয় প্রধান অধ্যাপক ডা.এম এম মনজুর হাসান স্যার,স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের রোগ নিয়ন্ত্রন শাখা,সিডিসির কর্মকতা ডা.নাইমুল হাসান সহ গ্রিন লাইফ মেডিকেল কলেজের আরো অনেক শ্রদ্ধেয় শিক্ষকবৃন্দ।

র‍্যালিটি গ্রিনরোডের বিভিন্ন জায়গা প্রদক্ষিণ করে আবার কলেজে এসে শেষ হয়৷

প্রোগ্রামের ২য় অংশে সকাল ১০-১২ ঘটিকা পর্যন্ত কলেজের লেকচার গ্যালারীতে জলাতঙ্ক সচেতনতা ও প্রতিরোধবিষয়ক এক সেমিনার অনুষ্ঠিত হয়। সেমিনারে কলেজের সম্মানিত শিক্ষকবৃন্দ ও শিক্ষার্থীরা উপস্থিত ছিলেন।

শুরুতে সেমিনারের মূল বিষয়গুলো তুলে ধরা হয়।
এরপর কলেজের পঞ্চম বর্ষের শিক্ষার্থী ও প্ল্যাটফর্ম প্রতিনিধি সুমিত সাহা প্ল্যাটফর্মকে সবার সামনে তার উপস্থাপনার মাধ্যমে তুলে ধরে।

এরপরে কমিউনিটি মেডিসিনের বিভাগীয় প্রধান অধ্যাপক আশরাফ উদ্দিন আহেমদ স্যার সূচনা বক্তব্য প্রদান করেন।

স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের রোগ নিয়ন্ত্রন শাখা, সিডিসির কর্মকতা ডা.নাইমুল হাসান জলাতঙ্ক সচেতনতা বিষয়ক প্রেজেন্টেশন এরপর সবার সামনে তুলে ধরেন।

এরপরে গ্রিন লাইফ মেডিকেল কলেজের সম্মানিত প্রিন্সিপাল অধ্যাপক ডা. এম এ আজহার স্যার তাঁর মূল্যবান বক্তব্য প্রদান করেন এবং জলাতঙ্ক সচেতনতা কার্যক্রমের এই উদ্যোগকে স্বাগত জানিয়ে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের রোগ নিয়ন্ত্রন শাখার পরিচালক অধ্যাপক ডা.সানিয়া তাহমিনা ম্যাডামের ভূয়সী প্রশংসা করেন।

এরপরে মাইক্রোবায়োলজি বিভাগীয় প্রধান অধ্যাপক এম এম মনজুর হাসান স্যার তাঁর বক্তব্য চমৎকার ভাবে তুলে ধরেন।

সেমিনারের শেষাংশে অধ্যাপক আশরাফ উদ্দিন আহমেদ স্যার সেমিনার সমাপনী বক্তব্য প্রদান করেন এবং স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের সাথে টিম প্ল্যাটফর্মের এই প্রোগ্রাম দেশের ৪৫ টি মেডিকেল ও ডেন্টাল কলেজে পরিচালনা করার ভূয়সী প্রশংসা করেন এবং এরকম প্রোগ্রাম আরো করার আহবান জানিয়ে ও সবাইকে ধন্যবাদ জানিয়ে সেমিনার পর্ব শেষ করেন।

প্রোগ্রামের শেষ পর্বে সাধারণ মানুষের মাঝে সচেতনতার লক্ষ্যে বিকাল ৫-৮ টা মেডিকেল কলেজের আউটডোরে সচেতনতামূলক কাউন্সিলিং ও সিগনেচার ক্যাম্পেইন পরিচালিত হয়। এই প্রোগ্রাম প্রায় ৩৫০ জন মানুষকে কাউন্সিলিং করা হয় ও ২০০ জন মানুষকে সিগনেচার ক্যাম্পেইনের আওতাভুক্ত করা হয়।
এই পর্ব পরিচালনার জন্য গ্রিন লাইফ মেডিকেল কলেজ, প্ল্যাটফর্ম ইউনিট, ফারিজ শেখ এর নেতৃত্বে অংশ নেয়।

পরিশেষে ফারিজ শেখ সবাইকে সারাদিনের প্রোগ্রাম নিয়ে ধন্যবাদ জানিয়ে পুরো কার্যক্রমের সমাপ্তি ঘোষনা করেন।

ফিচার রাইটার
ফারিজ শেখ
সাধারণ সম্পাদক, প্ল্যাটফর্ম

ওয়েব টিম

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Time limit is exhausted. Please reload the CAPTCHA.

Next Post

ডা. সুসানে গীতি দেশের ইতিহাসে প্রথম নারী মেজর জেনারেল

Mon Oct 1 , 2018
বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর প্রথম নারী মেজর জেনারেল পদে পদোন্নতি পেয়েছেন ডা. সুসানে গীতি। স্বাধীনতার ৪৭ বছর পর সেনাবাহিনীতে প্রথম নারী মেজর জেনারেল পেল বাংলাদেশ এবং দেশের ইতিহাসে তথা সেনাবাহিনীর ইতিহাসে, প্রথম নারী চিকিৎসক হিসেবে মেজর জেনারেল হলেন, ডা. সুসানে গীতি। মেজর জেনারেল ডা. সুসানে গীতি,MBBS,MCPS,FCPS, MMEd। সেনাপ্রধান জেনারেল আজিজ আহমেদ ও […]

সাম্প্রতিক পোষ্ট