‘একাত্তরের বিধবা’দের পাশে চিকিৎসকরা!

শেরপুরের নালিতাবাড়ি উপজেলার কাকরকান্দি ইউনিয়নের বিধবা পল্লীর (সোহাগপুর) বিধবাদের চিকিৎসায় এগিয়ে এসেছেন নবীন চিকিৎসকরা। এরা হলেন- ডা. শুভ প্রসাদ দাস, অয়ন মজিদ, জিশান শাহরিয়ার, তৃণা পোদ্দার, তৃষা পোদ্দার, তমাল পোদ্দার, মাজহারুল ইসলাম, নিয়াজ মোর্শেদ, বাবু মুন্সী, মাহমুদুল হাসান তপু প্রমুখ। ২৮শে জুন থেকে ডা. সুব্রত ঘোষের নেতৃত্বে নবীন চিকিৎসকদের উদ্যোগে ও শেরপুরের মুক্তিযোদ্ধা তপন পোদ্দারের ছেলে রাজীব পোদ্দারের ব্যবস্থাপনায় বিধবা পল্লীতে একটি চিকিৎসেবা শিবির পরিচালনা করা হয়। এরই অংশ হিসেবে সমপ্রতি ৩ বীর মাতাকে উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকায় আনা হয়। চোখের জটিল রোগে ভুগতে থাকা ফাতেমা বেওয়া ও আজুফা বেওয়াকে একাত্তরের শহীদ বুদ্ধিজীবী ডা. আলীম চৌধুরীর কন্যা ও বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের চক্ষু বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক ডা. নুজহাত চৌধুরী শম্পার অধীনে ভর্তি করা হয়। জরায়ু সমস্যায় ভুগতে থাকা করফুলি বেওয়াকে হলি ফ্যামিলি রেড ক্রিসেন্ট মেডিকেল কলেজের গাইনি বিভাগের প্রধান অধ্যাপক ডা. রওশন আরা বেগমের অধীনে ভর্তি করা হয়েছে। এরই মধ্যে বীর মাতা আজুফা ও ফাতেমার চোখে বন্ধ নেত্রনালী ও ছানির সফল অস্ত্রোপচার করা হয়েছে। অপরদিকে করফুলি বেওয়ার জরায়ু অপসারণের সফল অস্ত্রোপচার সম্পন্ন হয়েছে। তারা সবাই বর্তমানে সুস্থ রয়েছেন। ডা. সুব্রত ঘোষ বলেন, জাতির বীর সন্তানদের সেবায় তাদের এ কর্মকাণ্ড ভবিষ্যতেও অব্যাহত থাকবে।

(সূত্রঃ মানবজমিন)

ওয়েব টিম

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Time limit is exhausted. Please reload the CAPTCHA.

Next Post

দাঁতের মত সংবেদনশীল চিকিৎসায় হাতুড়ে ডাক্তারদের জন্য রোগীর জীবন ঝুঁকির মধ্যে!

Fri Sep 19 , 2014
শীতাতপ নিয়ন্ত্রিত সুদৃশ্য চেম্বার। আছে সাইনবোর্ড। তাতে হরেক রকম ডিগ্রি এবং তা দাঁতের ওপর। এদের অনেকে দাঁতের সমস্যায় কোনো চিকিৎসা না দিলেও শুধু ওষুধের পরামর্শপত্র লিখে দেওয়ার জন্য রোগীদের কাছ থেকে ভিজিট নিচ্ছেন ২৫০-৩০০ টাকা। আর দাঁতের সামান্য কাজের জন্য নেন হাজার হাজার টাকা। কিন্তু এই চিকিৎসকদের বেশিরভাগই ভুয়া। দন্ত […]

সাম্প্রতিক পোষ্ট