• প্রথম পাতা

February 11, 2015 10:30 am

প্রকাশকঃ

প্রতিদিন দেশে কয় জন মানুষ মারা যান? স্যরি কয়জন হবে না- কয়
হাজার হবে। সেটাও না- ২০১১সালের সি আই এ ফ্যাক্টসবুক
অনুযায়ী প্রতিদিন প্রায় ১লক্ষ ৫৫ হাজার লোক মারা যায়।
কোন রোগে বেশি মারা যায়? WHO র সমীক্ষা অনুযায়ী non
communicable disease মানে হার্টের অসুখ, ডায়াবেটিস,
ফুসফুসের অসুখ, ক্যান্সার এগুলোতে মারা যায় প্রায় ৬৮ ভাগ।
সারাবিশ্ব এর ৩% লোক বাংলাদেশে বাস করে। সে হিসাবে প্রতিদিন
মারা যায় ৩ হাজার ১০০ রোগী। বাংলাদেশের
চিকিৎসা ব্যবস্থা নিয়ে সবার যে ধারণা তাতে এ সং্খ্যা কয়েকগুন
ধরার কথা। আমি ৩১০০ ই ধরলাম।
এখন আসি কোথায় কেমন রোগী মারা যান?
বাড়িতে অনেকেই
মারা যান, ধরি ২০০-৪০০।
উপজেলা হেলথ কম্পলেক্সগুলোতে
সাধারণত খুব একটা মারা যায় না – খারাপ রোগীকে রেফার
করে দেয়া হয়। তবুও উপজেলা হেলথ কম্পলেক্স এ ৫০০
রোগী মারা যায় প্রতিদিন ধরে নিলাম।
জেলা হাসপাতাল সেখানেও কম মারা যায়- রেফার হয় খারাপ রোগী।
ধরি ৬৪*৩ #১৯২ জন। সব মিলিয়ে ১০০০জন।
ঢাকার হাসপাতাল শেষ ভরসা- ধরলাম ১০০০ জন প্রতিদিন
মারা যান।আমি আগের সব হিসাবে আর ও ৫০০ যোগ করলাম। কারণ
Cardiac hospital আর Neonatal department এ
মৃত্যু অস্বাভাবিক কোন ঘটনা না।
ক্লিনিকে বেশি রোগী মারা যান
না- কারণ একটু critical condition হলেই
সরকারি হাসপাতালে রেফার করা হয়- reputation এর
একটা ব্যাপার আছে। তবুও ১০০ জন ধরলাম।
যাই হোক বাকি থাকে কত? ৫০০। এই ৫০০ রোগী প্রতিদিন
মারা যান বিভাগীয় শহরের হাসপাতালগুলোতে। সে হিসাবে প্রতিদিন
৬২ জন করে মারা যান বিভাগীয় শহরের হাসপাতালে।
আমার এই লম্বা স্ট্যাটাস কোন গবেষণালব্ধ ফল না। কিছু নেট
ঘাটাঘাটি আর কিছু প্রতি লেভেলে নিজের কাজ করার অভিজ্ঞতা।
সিলেট মেডিকেলে ১ দিনে ৩২ জন মারা যাওয়াটা একটা ঘটনা-
তবে আপনি যদি সার্বিক দিক বিবেচনা করেন তবে সেটা একটা নিত্য-
নৈমিত্তিক ঘটনা। উপজেলা, জেলা সদর, বিভাগীয় পর্যায়ের সকল
খারাপ রোগী এখানে আসে রেফার হয়ে। ইমার্জেন্সিতে brought
dead, মেডিসিনের acute MI, CVD, শিশু বিভাগের LBW, HIE,
Neonatal sepsis, সার্জারিতে Acute Abdomen,
Head Injury, RTA, গাইনীতে PPH, APH এসব রোগের
কথা মাথায় থাকলে 32 people dead in a Tertiary level
hospital is a news but not at all breaking
news or a news to create panic.

ডাঃ অনুজ কান্তি দাশ

শেয়ার করুনঃ Facebook Google LinkedIn Print Email
পোষ্টট্যাগঃ সিলেট এম এ জি ওসমানী মেডিকেল কলেজ,

পাঠকদের মন্তব্যঃ ( 1)

  1. I don’t think it is a big issue. It is as usual scenario in a tertiary level hospital. Why to blame only Sylhet MAG Osmani Medical College only? Inspite of many constrains child mortality is decreasing in Bangladesh.




Time limit is exhausted. Please reload the CAPTCHA.

Advertisement
Advertisement
.