• পড়ালেখা

October 14, 2014 7:25 pm

প্রকাশকঃ

লেখকঃ রাজ্যহীন রাজপুত্র

প্রথমে একটু কথা বলে নেই ।

তখন আমি পঞ্চম বর্ষের ছাত্র ।চাচীর মায়ের বাসায় গেছি বেড়াতে।যেহেতু ডাক্তারী পড়ি ,দুকথায় কুশল জিজ্ঞেস করার পরপরই যথারীতি শুরু করলেন আমার কোমরে ব্যথা ,পিঠ ব্যথা ,জ্বলে ,পোড়ে ,কামড়ায় ,থাইরক্স খায় ,উনি অমুক প্রফেসরকে দেখান,এটা কি ,আরো হাবিজাবি ।ডাক্তার ছেলের সাথে যে সাধারণ আলাপ করা যায় এটা তো সাধারণ মানুষের মাথাতেই আসে না ।যাহোক ,একপর্যায়ে বললেন উনাদের একজন আত্মীয়ার ডেলিভারি হয়েছে কিন্তু পর্যাপ্ত ল্যাকটেশন হচ্ছেনা ।আমি বললাম ,একটা কাজ করুন ওমিডন(ডমপেরিডন) দিনে তিন বেলা দুইটা করে খাওয়ান ।উনি বিস্ময়ের সাথে আমাকে বলে উঠলেন ,আরে এইটা তো বমির ঔষধ !এইটা কি এতে দেওয়া যায় !!!

উনি এই কথা বলতেই পারেন ।কিন্তু আমরা ডাক্তারেরা যখন এর সঠিক ব্যবহার না জানি ,ব্যপারটা একটু দুঃখজনক বটে ।তাই একটু আলাপ করি ।বলতে পারেন এত কিছু থাকতে হঠাত্‍ ডমপেরিডন নিয়ে লাগলাম কেন ?যদি খেয়াল করে দেখেন ,এখন প্রতিটি ডাক্তার প্রেসক্রিপশনে এই ড্রাগটা থাকে ।দৈনন্দিন জীবনের খুব কমন কিছু রোগে এর প্রয়োজনটাও অনেক ।আসুন জেনে নেই ডমপেরিডন সম্পর্কে ।

DOMPERIDON একটি পেরিফেরাল ডোপামিন 2 রিসেপ্টর ব্লকার ।এটি প্রধানত একটি গ্যাসট্রোপ্রোকাইনেটিক এজেন্ট ।(যদিও প্রায়শই একে এন্টি ভমিটিং এজেন্ট বলে ভুল করা হয় )।এটি প্রধানত স্টমাকের কার্ডিয়াক স্ফিংটার কে বন্ধ করে পাইলোরিক স্ফিংটারকে খুলে দেয় ।যার ফলে খাবার ও এসিড নিচে নেমে যায় (decreases gastric emptying time,moves acid and food into lower gut) ।আসুন এর ইন্ডিকেশন জেনে নেই

NAUSEA AND VOMITTING-কারণটা স্পষ্ট ।এটা খাবার ও এসিডকে উপরোক্ত মেকানিজমে নিচে নামিয়ে একপ্রকার এন্টিপেরিস্ট্যালসিস করে ।তাই এটা antivomiting agent হিসেবে কাজ করে ।লোকজন ,ফার্মেসীওয়ালা এটাকে বমির জন্য মুড়িমুড়কির মত ব্যবহার করলেও ডাক্তার হিসেবে আপনি জেনে রাখুন ,বমির সাথে ডায়রিয়া থাকলে ডমপেরিডন দেওয়া যাবে না ।কারণ ডমপেরিডন খাবার নিচে নামিয়ে দেয় তাই বমি কমলেও ডায়রিয়া বাড়বে ।তখন সেন্ট্রাল এক্টিং ড্রাগ যেমন অনডানসেট্রন ব্যবহার করতে হবে ।

Non ulcer dyspepsia-ডমপেরিডন এই রোগের মহৌষধ ।এটি একটি ফাংশনাল অথবা পার্ট অফ অরগ্যানিক ডিসঅর্ডার যেখান পেশেন্টের অল্প খেলে পেট ফুলে যায় ,পেট ফাঁপ দেয় ,ব্লটিং ,ফ্ল্যাটুলেন্স হয় কিন্তু আন্ডারলাইং মেজর কোন ডিজিজ পাওয়া যায় না ।

GERD -ফার্ষ্ট লাইন থেরাপী ডমপেরিডন ।এ রোগে বুক জ্বলে(hurt burn) ,মুখে এসিড আসার কারণে মুখ তেতো লাগে(Acid brush) ।মুখে এসিড নিউট্রালাইজ করতে লালা ভরে যায় (Water brush) ।এ রোগে ডমপেরিডনের ডোজ 10mg করে তিনবার কমপক্ষে 6সপ্তাহ ।

GASTROPARESIS-যারা ডায়াবেটিক অথবা স্টমাকে সার্জারী করা হয়েছে অথবা এন্টিকোলিনারজিক জাতীয় কোন ড্রাগ নেয় অথবা সিস্টেমিক স্ক্রেরোসিস আছে তাদের প্রায়শই স্টমাকে খাবার জমে যায় ,নিচে পাস করে না ।এটাকে গ্যাসট্রোপেরেসিস বলে ।পেশেন্ট খাবার হজম করতে পারে না ,খেলে পেট ফুলে যায় ,ফাঁপ দেয় ,ফ্লাটুলেন্স হয় ।এদের ক্ষেত্রে ডমপেরিডন খুব ভাল কাজ করে ।

LACTATION-যেসব নারীর বাচ্চা পর্যাপ্ত দুধ পায়না ল্যাকটেশন কম হবার কারণে ,তাদেরকে ডমপেরিডন দেওয়া হয়(গতানুগতিকের চেয়ে একটু হাই ডোজে যাতে সিএনএস ব্যারিয়ার ক্রস করতে পারে ) ।ডমপেরিডন একটি ডোপামিন ব্লকার ।আর ডোপামিন প্রোল্যাকটিনকে ইনহিবিট করে ।যার ফলে ডমপেরিডন দিলে প্রোল্যাকটিন সেক্রিশন হয় ।যারা সন্তান প্রসব করেছেন কিন্তু পর্যাপ্ত ল্যাকটেশন হচ্ছে না তাদের জন্য tab domperidon 10mg -2+2+2

side effects
ডমপেরিডনের দুইটা রেয়ার কম্প্লিকেশন আছে ।প্রথমটা হলো acute dystonic syndrome-এটা বাচ্চাদের বেশী হয় কারণ তাদের সিএনএস BBB ডেভলপ থাকে না ।একারণে নরম্যাল ডোজেই ডমপেরিডন ব্রেইনে যেয়ে ডোপামিন কমিয়ে দেয় ।(নরম্যালী ডমপেরিডন BBB ক্রস করে না)যার ফলে তুলনামুলক এসিটাইলকোলিন বেড়ে যাওয়ায় হঠাত্‍ ঘাড় মুচড়ে বেঁকে যাওয়া ,জিহবা টেনে যাওয়া ,একদিকে ঘাড় ,মুখ বেঁকে যেতে পারে ।শোল্ডার মাসলগুলো সবচেয়ে বেশী এফেকটেড হয় ।এক্ষেত্রে ডমপেরিডন বন্ধ করে tab procyclidin 1+0+1(anticholinergic,to counter excitatory effect of acetylcholine)ব্যবহার করা হয় ।
দ্বিতীয়টি হলো LACTATION.মেকানিজম আগেই বলেছি ।যদিও এটি rare.

N.B-এটা নিয়ে এত কথা বললাম কারণ এটি বহুল ব্যবহ্রত একটি ড্রাগ ।প্রায় প্রতিটি প্রেসক্রিপশনে থাকে ।কিন্তু ফার্মাকোলজী অথবা মেডিসিন কোথাও এটাকে ভালভাবে পড়ানো হয় না ।(গতানুগতিক ,আইটেমে নাই তাই পড়ার দরকার নাই)।কিন্তু এটা খুব প্রয়োজনীয় ড্রাগ ।এই কয়টা কথা জেনে রাখলে উপকার হবে (insaa ALLAH).

–বিষয়বস্তুকে বাংলায় ,পেশেন্টের ভাষায় ,সরলীকৃতভাবে উপস্হাপন করা হয়েছে ,যাতে ফোর্থ ইয়ার থেকে উপরের লেভেলের ভাইবোনের বুঝতে সুবিধা হয় ।

শেয়ার করুনঃ Facebook Google LinkedIn Print Email
পোষ্টট্যাগঃ গ্যাস্ট্রিক, ডমপেরিডন, পাকস্থলি, বমি, মেকানিজম,

পাঠকদের মন্তব্যঃ ( 3)

  1. Toufiq says:

    খুব ভাল লাগল লেখাটা পড়ে, এরকম মাঝে মাঝে কিছু মেডিসিন নিয়ে লিখবেন.

  2. Md Anwarul Kawchar says:

    ধন্যবাদ। লেখাটা অনেক কাজে আসলো আমার।




Time limit is exhausted. Please reload the CAPTCHA.

Advertisement
Advertisement
.