• ক্যারিয়ার

May 4, 2019 3:27 pm

প্রকাশকঃ


IELTS এর সাথে সাথে GMC গত বছর হতে OET এর স্কোর কে এপ্রোভড করছে।তারপর হয়েই OET এর জনপ্রিয়তা দিন দিন বৃদ্ধি পাচ্ছে। OET তে সব গুলো মডিউল এ B বা তার উপর থাকলে আপনি PLAB 1, GMC registration এবং AMC পরীক্ষার যে ল্যাংগুয়েজ পরীক্ষা ক্রাইটেরিয়া সেটাই উতরে যাবেন। IELTS এ বলা হয় প্রধান বাধা Writing যার কারনে অন্য সব মডিউল এ কাংখিত মার্ক থাকলেও এই একটি মডিউলের জন্য বার বার পরীক্ষায় বসতে হয়। সেই দিক বিবেচনায় OET এর Writing অনেকটাই সহজ যার প্রধান কারণ আমাদের প্রফেশন রিলেটেড আপনাকে একটি রেফারাল লেটার লেখা। আমি যদি IELTS এবং OET এর মডিউল গুলোর মাঝে পার্থক্য করি তবে দেখা যাবে Listening এবং Reading তুলনামুলক ভাবে OET তে একটু কঠিন কিন্তু অসাধ্য নয় অন্যদিকে Speaking and Writing তুলনামূলক অনেক সহজ OET তে। তবে OET তে যেউ সমস্যাটা বেশী ফেস করা হয় সেটা হল IELTS মত এত বেশী ম্যাটেরিয়ালস নেই এভেইলেভল। খুবই সীমিত ম্যাটেরিয়ালস। আর আরেকটি প্রধান সমস্যা উচ্চ পরীক্ষার ফি বাংলাদেশী টাকায় প্রায় ৩৭/৩৮ হাজার টাকা অবশ্য এখন গ্রুপ রেজিষ্ট্রেশন এর মাধ্যমে ৩০%ডিসকাউন্ট পাওয়া যায়। এই ত গেল তুলনামূলক কথা এবার আশা যাক OET এর মডিউল নিয়ে কথা-
১. Listening-
তিন পার্ট এ পরীক্ষা হয়। সময় ৪৫ মিনিট।
পার্ট ১- এখানে দুইটা এক্সট্রাক্ট থাকে। দুইটা শর্ট কনভারসেশন হয় ডাক্তার ও রোগীর মাঝে। মোট ২৪ টি শূন্যস্থান থাকে আপনাকে মনোযোগ দিয়ে শুনে এই শূন্যস্থান পূরণ করতে হয়। এই পার্ট টি হল লিসেনিং এর গোল্ড মাইন। আপনাকে এখানে নূন্যতম ২০ টা কারেক্ট করতেই হবে না হলে বিপদে পড়তে হবে।
পার্ট ২- এখানে ৬ টি খুবই শর্ট কনভারসেশন থাকে। যেমন- ডাক্তার ও নার্স ; ডাক্তার ও ডাক্তার; হাসপিটাল ম্যানেজমেণ্ট; কোন মেশিন যেমন এক্সরে, আল্ট্রা এসব এর ব্যবহার; বিভিন্ন প্রসেডিউর যেমন- এবিজি, CV লাইন, ক্যানুলা। আপনাকে এসব শুনে ৬টি মাল্টিপল কোয়েশ্নের উত্তর দিতে হবে( A/B/C)। এই পার্টে ইজিলি ৪/৫ টা পারা যায় ২/১ টা একটু কঠিন থাকে।
পার্ট ৩- OET এর এক্সামে এই পার্ট টা হল সবচেয়ে কঠিন।এই পার্টে দুইটা এক্সট্রাক থাকে মানে দুইটা টপিকের উপর মনোটোনাস স্পিস হয়। এখানে ৬/৬ করে মোট ১২ টা মাল্টিপল কোয়েশ্নের উত্তর দিতে হয়। এই পার্টের সব বড় সমস্যা আপনাকে একই সাথে কোয়েশ্ন পড়তে হবে প্লাস শুনতে হবে এবং উত্তর দিতে হবে।তবে প্রাক্টিস করলে প্লাস কিছু টেকনিক ফলো করলে এখানে ১২ টি কোয়েশ্নে এর মধ্যে ৮ টি অনায়াসে এন্সার করা যায়। বাকী ৪ টা একটু কঠিন থাকে।
এখন আসি আপনাকে কাংখিতে ব্রান্ড স্কোর B/350 পাওয়ার জন্য সর্বনিম্ন ৩০টি কোয়েশ্ন কারেক্ট করতে হবে।

Reading-
এই মডিউল টি ও তিন টি পার্টে বিভক্ত। কিন্তু এখানে আপনাকে আগে পার্ট ১ এন্সার করে তারপর পার্ট২এবং৩ একসাথে এন্সার করতে হবে। সময় পার্ট ১ এর জন্য ১৫ মিনিট এবং পার্ট২ এবং ৩ এর জন্য ৩০ মিনিট।
পার্ট ১- সময় ১৫ মিনিট। মোট প্রশ্ন ২০ টি।
এখানে ৪ টি শর্ট টেক্সট থাকে যেমন একটা টেক্সট টিটেনাসের ডেফিনিশন আরেকটি তে টিটেনাসে সাইন সিম্পটম আরেকটিতে টিটেনাসের ট্রিটমেন্ট আরেকটি কমপ্লিকেশন । এখন আসি প্রশ্নের ধরন – প্রথম ১-৭ হল টেক্সট ম্যাচিং মানে যেমন টিটেনাসে ট্রিটমেন্ট কোন টেক্সটে আছে, কোন টেক্সটে ড্রাগের ডোস আছে এরকম ৭ টি কোয়েশ্ন। ৮-২০ নাম্বার প্রশ্ন শর্ট এন্সার কোয়েশ্ন এবং ফিলিং ইন দ্যা গ্যাপ এই ধরনের কোয়েশ্ন যার এন্সার আপনি ওই ৪ টি টেক্সতে পাবেন।
Part 1 এর কোয়েশ্ন গুলো ইজি থাকে কিন্তু এখানে বড় সমস্যা সময়। ১৫ মিনিট এ শেষ করা একটু কঠিন।

পার্ট ২ এবং পার্ট ৩—পার্ট ১ শেষ হওয়ার পরপর আপনাকে পার্ট ২&৩ এর কোয়েশ্ন এবং এন্সার শিট দেওয়া হবে সময় ৩০ মিনিট।আলাদা করে পার্ট ২&৩ এর জন্য কোন সময় বন্টন নেই। আপনি এই সময়ের মধ্যে যেকোন একটা দিয়ে শুরু করে এন্সার করতে পারেন। পার্ট ২ এ ৬ টি শর্ট টেক্সট থাকে প্রতিটি টেক্সটের নিচে একটি করে মোট ৬ টি মাল্টপল কোয়েশ্ন থাকে। এই পার্ট তুলনা মূলক ভাবে সোজা। এবার আসি পার্ট ৩ এর কথা।এখানে দুইটা টপিক থাকে যেমন একটা টপিক থাকতে পারে ওভিসিটি নিয়ে আরেকটি ড্রাগের এক্সসিপিয়েন্ট। প্রতিটি টপিকের ৬/৭/৮ টা করে প্যারা থাকে। দুইটি টপিকের মাল্টিপল কোয়েশ্ন থাকে ৮ টি করে মোট ১৬ টি কোয়েশ্ন। এখানে আপনি সহজে ১২ টি কোয়েশ্ন পারবেন বাকী ৪ টি একটু কঠিন হয়।
ওভার অল রিডিং পার্টে ভাল করতে হলে পার্ট B&C তে ভাল নাম্বার ক্যারি করতে হয়। সর্বনিম্ন ৩০ টা কোয়েশ্ন এর সঠিক এন্সার করতে পারলে B/350 আসবে।

Speaking-
সবচেয়ে সোজা পার্ট আমার কাছে মনে হয়েছে। এখানে আপনাকে ডাক্তার হয়ে রোগী/ রোগীর অভিভাবক (রোল প্লে আসল রোগী/রোগীর অভিভাবক নয়) এর সাথে তাদের রোগ সম্পর্কে / রিপোর্ট সম্পর্কে/ অপারেশন সম্পর্ক এ বলা। এখানে আপনাকে দুইটি রোল প্লে কার্ড দেওয়া হবে সেই কার্ডে ই উল্লেখ থাকবে আপনি রোগী কে অথবা রোগীর অভিভাবক কে কি প্রশ্ন করবেন। তবে এখানে দেখা হয় আপনার ফ্লুয়েন্সি, কাউন্সিলিং পাওয়ার, রোগীর প্রতি আপনি কতটা ইম্প্যাথিক। রোগী এর রোল যিনি প্লে করেন উনাকেও সেইম কার্ড দেওয়া হয় উনি ওই কার্ডের কোয়েশ্ন গুলাই করেন। দুইটি রোল প্লে হয়। রোল প্লের শুরুতে ৩ মিনিট দেওয়া হয় প্রস্তুতির জন্য আর রোল প্লে হয় ৫ মিনিট। তারপর ২ য় রোল প্লে সেইমভাবে। খুবই সোজা। আপনি যদি জাস্ট রোল প্লে কাডের কোয়েশ্ন গূলো রোগীকে করেন উইথ সাম সিম্প্যাথী/ ইম্প্যাথিকাল sentence যেমন- I am sorry to hear that,/ it must be distressing for u/ I know how u feel/ আশা করা যায় কাংখিত ব্যান্ড B/350 পাওয়া কোন ব্যাপার না।

Writing- IELTS এর তুলনায় OET রাইটিং আমি মনে করে খুব ই সহজ। এখানে আপনাকে একটা রেফারেল লেটার লেখতে হয়৷ সময় ৪৫ মিনিট।প্রথম ৫মিনিট যাস্ট কেস নোট পড়বেন পরের ৪০ মিনিট লেখালেখির জন্য।
পরীক্ষায় আপনাকে কেস নোট দেওয়া হবে রোগীর সামগ্রিক অবস্থা নিয়ে, সে কি সমস্যা নিয়ে এসেছে আগে এসেছিল কিনা, রোগীর আগে থেকে কি কি সমস্যা ছিল, কি কি ওষুধ খাইত/খায়, অপারেশন হয়েছিল কিনা নানা তথ্য থাকে। আপনার কাজ হল কার কাছে রেফার করছেন যেই অনুযায়ী যেই সব কেস নোট রিলিভেন্ট সেগূলো সিলিক্ট করে নির্দিষ্ট ফরমাটে স্ট্রাকচার দেওয়া। এখানে মূলত দেখা হয় আপনি সঠিক কেস নোট সিলেক্ট করছেন কিনা, আপনার লেখায় coherency আছে কিনা, আপনি বানান ভূল করেছেন কিনা। আপনাকে অবশ্যি লেটার টির মূল বডি ১৮০-২০০ শব্দের মধ্যে লেখতে হবে। তবে আপনি যদি বানানা ভুল না করেন প্লাস গ্রোস কোন কেস নোট বাদ না দেন তবে আপনি ২২০/২৩০ শব্দে লেখলেও কাংখিত ব্র‍্যান্ড স্কোর B/350 পেতে আশা রাখি কষ্ট হবে না।

Exam date and Exam Center in BD:
বাংলাদেশে OET এর সেন্টার একটাই Future Ed Banani,Dhaka.
Exam date প্রতি মাসে একটা করে থাকে। এক মাস আগে রেজিষ্ট্রেশন করতে হয়। রেজিষ্ট্রেশন এর জন্য পাসপোর্ট থাকতে হয়। আপনি নিজে রেজিষ্টেশন করতে পারেন ক্রেডিট কার্ড দিয়ে অথবা Future Ed এর মাধ্যমে করতে পারেন তারা অতিরিক্ত ৩/৪ হাজার টাকা বেশী নেয়।
Coaching and Mock Test: Future Ed এ কোচিং করা যায় কিন্তু পেমেন্ট বেশী আমার অভিজ্ঞতায় বলে আপনি বেশী একটা বেনেফিটেড হবেনা কোচিং করে তার চেয়ে নিজে পড়ে চেষ্টা করলে ভাল কিছু হবে আর মক টেস্ট দিতে পারেন future Ed যাস্ট ফর এক্সাম সেন্টার অভিজ্ঞতা নেওয়া প্লাস রিয়েল টেস্টের একটা ফিলিং নেওয়া। এছাড়া E2 language আছে online coaching কিন্তু হাইলি পেইড।

নোটস- একটা কথা বলে রাখা ভাল। OET যদিও প্রফেশনাল এক্সাম বাট তারা এখনো নাম্বারিং এ IELTS Standard এ যেতে পারি নি।তাই আপনার ভাগ্য একটা বড় ফ্যাক্টর এখানে। প্রিপারেশনের কথা বললে আপনার ব্যাসিক ইংলিশ যদি ভাল হয় এবং আপনি প্রতিদিন ২/৩ ঘন্টা সময় দিতে পারেন তবে আপনার জন্য ১ মাস মোর দ্যান ইনাফ টাইম।
নিচের গ্রুপটিতে আরো ডিটেইলস ভাবে সব কিছু ব্যাখা করা আছে যা আপনার প্রিপারেশনে সহায়ক হিসেবে কাজ করবে।

https://www.facebook.com/groups/611964972560828/

Dr Mahedi Hasan Sabbir
DMC (K-69)
Session- 2011-2012

শেয়ার করুনঃ Facebook Google LinkedIn Print Email
পোষ্টট্যাগঃ ocupational english test, OET, ওইটি, ওইটি পরীক্ষা, মডিউল,

পাঠকদের মন্তব্যঃ ( 0)




Time limit is exhausted. Please reload the CAPTCHA.

Advertisement
Advertisement
Advertisement
.