• sticky

June 18, 2016 3:46 pm

প্রকাশকঃ

লেখকঃ ডাঃ অনুজ কান্তি দাশ

গতকাল দিবাগত রাত সোয়া ৪ টার দিকে সিলেট এম এ জি ওসমানি মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের কার্ডিওলজি বিভাগে(ওয়ার্ড নং ১৬) Non ST elevation MI with Cardiogenic shock এর রোগী মারা যান। মারা যাবার পরপরই রোগীর লোক চড়াও হোন কর্তব্যরত রেজিস্ট্রার ডা পলাশ কান্তি দে(১৪তম ব্যাচ, খুলনা মেডিকেল কলেজ- আমার জুনিয়র) এর উপর। কলার টেনে কিছু ধস্তাধস্তি করে। সেখানে উপস্থিত ইন্টার্ন চিকিৎসককেও লাঞ্ছিত করে তারা। ওয়ার্ডের অন্যদের সহায়তায় আক্রমণকারি লোকদের আটকে রাখতে সমর্থ হয় তারা।

পরবর্তীতে ইন্টার্নরা ধর্মঘটে যায় এবং রেজিস্ট্রার আর সহকারি রেজিস্ট্রাররা একতাবদ্ধ হয়ে প্রথমে কার্ডিওলজি বিভাগীয় প্রধান ডা শাহাবুদ্দিন স্যার, মেডিসিন বিভাগীয় প্রধান ডা নাজমুল স্যার, এনায়েত স্যার উনাদের সাথে নিয়ে পরিচালক মহোদয়ের কাছে যায়। সেখানে গিয়ে তাৎক্ষনিক মোবাইল কোর্ট ডেকে হামলাকারিদের শাস্তির দাবি জানানো হয় এবং ফৌজদারি মামলা করার আর্জি জানানো হয়। পরিচালক মহোদয় ডিসি স্যারকে ফোন দেন এবং একজন এন ডিসি খুব দ্রুত ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন। পরবর্তীতে উক্ত হামলাকারীকে সর্বনিম্ন ৩(তিন) মাসের জেল জরিমানা করার আদেশ দেন। উক্ত আদেশের পর ইন্টার্নরা সবাই কাজে ফেরত যায়।

ডাঃ অনুজ কান্তি দাশ বলেছেন, “এটাকে আমি কোন বিজয় হিসেবে দেখিনা বরং এটাকে আমাদের প্রাপ্য ন্যায় বিচারের একটা অংশ হিসেবে দেখি। প্রতিটা পেশাজীবির কাছে তার কর্মস্থল একটা পবিত্র যায়গা- একটা ভরসার জায়গা- একটা নিরাপদ জায়গা। কর্মস্থল সবসময় নিরাপদ থাকুক একটা আমাদের সবার কামনা। এমনতর ঘটনা যেন আর না ঘটে সে জন্য এমন দৃষ্টান্তের খুব প্রয়োজন ছিল”।

শেয়ার করুনঃ Facebook Google LinkedIn Print Email
পোষ্টট্যাগঃ জেল-জরিমানা, ডাঃ অনুজ কান্তি দাশ, রোগীর মৃত্যু, সিলেট ওসমানী মেডিকেল,

পাঠকদের মন্তব্যঃ ( 0)




Time limit is exhausted. Please reload the CAPTCHA.

Advertisement
Advertisement
.