রোজায় ইনসুলিন এবং এন্টি ডায়াবেটিক ড্রাগসের ব্যাবহার

2

আমাদের মা-বাবা অথবা দাদু-নানু যাঁরা ডায়াবেটিসের জন্য ইনসুলিন বা ওরাল হাইপোগ্লাইসেমিক ড্রাগ নেন, আসন্ন রমজান মাসে তাঁদের ইনসুলিনের ডোজ কখন কী রকম হবে , রোজা রেখে CBG করা যাবে কিনা-এসব প্রয়োজনীয় তথ্য সকলকে জানাতে বিএসএমএমইউ এর ডিপার্টমেন্ট অফ এন্ডোক্রিনোলজি প্রতি রমজান মাসে তথ্য বিনিময় কার্যক্রম পরিচালনা করে । প্রফেসর ফরিদউদ্দীন স্যারের এ সম্পর্কিত দুটো লেকচার ক্লাস করার সৌভাগ্য হয়েছিল আমার তাঁর লেকচার থেকে লিখছি:
(১) রোজা রেখে CBG করা যাবে। ধর্মীয় দৃষ্টিকোণ থেকে দিনে ও রাতে ব্লাড স্যাম্পল কালেক্ট করতে কোন বাঁধা নেই। ইনসুলিনের ডোজ ঠিক করতে অবশ্যই অন্তত তিনবার CBG করতে হবে রমজানের প্রথম দিকে-সকাল দশটা, ইফতারের আগে পরে,রাত দশটা বা সেহরির আগে পরে। CBG যদি কখনো <4 এর কম হয় এবং রোগীর হাইপোগ্লাইসেমিইয়ার লক্ষণ থাকে তাহলে রোজা ভাঙতে হবে, তবে ইফতারের আগে যদি <4 থাকে বা হাইপোগ্লাইসেমিয়ার লক্ষণ না আসা পর্যন্ত ভাঙতে বলা হয় নি। (২) সকালের ইনসুলিন একই পরিমাণে ইফতারের সময় নিতে হবে, রোজা ভেঙ্গে ইনসুলিন নিয়ে আধা ঘন্টা অপেক্ষার দরকার নেই, রাতের ইনসুলিনের অর্ধেক পরিমাণ বা এক তৃতীয়াংশ সেহেরীতে নিতে হবে । যাঁদের রক্তের গ্লুকোজ কন্ট্রোলে থাকে তাঁদের ক্ষেত্রে সকালের ডোজ থেকে ৪ কমবে, রাতের ডোজ তিন ভাগের এক ভাগ নিতে হবে সেহেরীতে । যাঁদের গ্লুকোজ কন্ট্রোলে থাকে না বা বেশী থাকে তাঁদের জন্য সকালের ডোজ ৪ বাড়বে, সেহরীতে রাতের ডোজের অর্ধেক দিতে হবে । বেসাল ইনসুলিন যদি কেউ নিয়ে থাকেন তাঁর ডোজ ২০-৩০% কমবে ।
(৩) অন্যান্য মুখে খাওয়ার ওষুধ- Gliclazide MR, Glimepiride যেগুলো একবেলা সকালে খেতে হত সেগুলো একই পরিমাণে ইফতারে । Gliclazide, Glibenclamide যেগুলো দুবার খেতে হয় ইফাতারে সকালের ডোজ একই পরিমাণে আর সেহরিতে রাতের ডোজ অর্ধেক পরিমাণে । Metformin যারা ১৫০০ mg খেতেন ইফতারে ১০০০mg এবং সেহরীতে ৫০০mg খেতে হবে । যে ওষুধগুলো শুধু রাতের ডোজ সেগুলো অপরিবর্তিত থাকবে ।
প্রথম দুটো তথ্য জানা থাকলে রমজান মাসে অনাকাঙ্ক্ষিত দূর্ঘটনা এড়ানো যাবে । এখানে উল্লেখিত সকল তথ্য প্রফেসর ফরিদউদ্দীন স্যারের লেকচার থেকে নেয়া, এবং তাঁর নির্দেশমত সকলের জ্ঞাতার্থে পয়েন্ট আকারে অল্প কিছু তথ্য জানানো হল । বিস্তারিত জানতে স্যারের সাথে বঙ্গবন্ধু মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের ডি ব্লক ১৬ তলায় এন্ডোক্রাইনোলজি বিভাগে দেখা করতে পারেন অথবা বারডেম জেনারেল হাসপাতালে যোগাযোগ করুন ।

লিখেছেন: ডা. মোহিব নীরব

2 thoughts on “রোজায় ইনসুলিন এবং এন্টি ডায়াবেটিক ড্রাগসের ব্যাবহার

  1. রাতের ডোজের কোন পরিবর্তন হবে না? রেগুলার ইনসুলিনতো তিনবার নিতে হয়।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Time limit is exhausted. Please reload the CAPTCHA.

Next Post

মাহে রমজানে রোজাদার ডায়াবেটিস রোগীর প্র‍য়োজনীয় তথ্য

Fri Jun 19 , 2015
সবার জন্য প্রয়োজনীয় তথ্য: আমাদের বাসায় বা আত্নীয় দের মাঝে অনেক এর এ ডায়াবেটিস রোগ আছে। ডায়াবেটিক নিয়ে রোজা রাখতে কিছু নিয়ম মেনে চললে অনাকাঙ্ক্ষিত দুর্ঘটনা এড়ানো যায়। আপনাদের সুবিধার জন্য খুব সহজ করে লিখলাম। ১)ব্লাড পরীক্ষা করা যাবে কিনা? ডায়বেটিস রুগির রোজার সময় গ্লুকোমিটার দিয়ে রক্ত পরীক্ষা করা যাবে,এক্ষেত্রে […]

সাম্প্রতিক পোষ্ট