• প্রথম পাতা

January 9, 2019 9:35 am

আলিফ নামের দু’মাস বয়েসী বাচ্চাটি প্রথম ঢাকা শিশু হাসপাতালে আসে TCA (Total colonic agangliosis) নামক এক রোগ নিয়ে। এটি বৃহদান্ত্র বা কোলনের এমন এক রোগ যেখানে পায়খানা বৃহদ্রান্ত্র পার হয়ে মলাশয়ে যেতে পারেনা, বৃহদ্রান্ত্রেই জমা হতে থাকে, যার ফলে বাচ্চারা পায়খানা করে না। এই রোগে চিকিৎসার প্রথম ধাপে ভালো ক্ষুদ্রান্ত্র দিয়ে পেটের উপর একটা বিকল্প পায়খানার রাস্তা করে দিতে হয়।

আলিফকেও দুই মাস বয়সেই পেটের উপর ক্ষুদ্রান্ত্র দিয়ে একটা বিকল্প পায়খানার রাস্তা করে দেয়া হলো। ঝামেলা বাধলো এর পরে, এই রোগের ডেফিনিটিভ অপারেশনের বেলায়। ডেফিনিটিভ অপারেশন হিসাবে ঢাকা শহরে শিশু সার্জারী হয় এই ধরনের প্রতিষ্ঠানগুলোতে সাধারণত ক্ষুদ্রান্ত্র নিয়ে সরাসরি মলদ্বারে জোড়া দেয়া হয়, চিকিৎসা বিজ্ঞানে যেটাকে বলে আইলিও এনাল এনাস্টোমসিস (Ileo anal anastomosis)। এই অপারেশনের পর প্রায় তিন ভাগের এক ভাগ বাচ্চা জটিলতায় মারা যায় আর তিন ভাগের এক ভাগ বাচ্চা তীব্র পানি শুন্যতা, অপুষ্টিসহ নানাবিধ জটিলতা নিয়ে ধুঁকে ধুঁকে বেঁচে থাকে। অথচ এই রোগের আদর্শ অপারেশন হচ্ছে Modified duhamel martin pull through, যেটাতে মলদ্বারের ঠিক উপরে ভালো ক্ষুদ্রান্ত্র এবং নষ্ট বৃহদ্রান্ত্র মিলিয়ে একটা থলি তৈরী করতে হয়, যেখানে এসে পায়খানা জমা হবে এবং সেখান থেকে পানি, লবণ ও প্রয়োজনীয় পুষ্টি শোষণের পর মলদ্বার দিয়ে বের হয়ে যাবে। এই অপারেশনে নাড়ি জোড়া দেওয়ার জন্য স্ট্যাপলার প্রয়োজন হয়। বাচ্চাদের উপযোগী স্ট্যাপ্লার এর দুষ্প্রাপ্যতার কারণেই মূলত আসল অপারেশন না করে বিকল্প আইলিও আনাল এনাস্টোমসিস করা হতো।

কিন্তু আলিফকে এই ঝুঁকিপূর্ণ অপারেশনের মধ্য দিয়ে যেতে হয় নি। ঢাকা শিশু হাসপাতালের শিশু সার্জারি বিভাগের সহকারী অধ্যাপক ডাঃ সাব্বির করিম তিন মাস আগে স্ট্যাপ্লার ছাড়াই হাতে সেলাই করে সাড়ে তিন ঘন্টায় আলিফের Modified duhamel martin pull through বা আসল অপারেশন সফলভাবে সম্পন্ন করেন। পরবর্তীতে পেটের উপর বানানো বিকল্প পায়খানার রাস্তা বা ileostomy বন্ধ করে দেয়া হয়।
আগে আলিফ হয়তো ১০/১৫ দিনে একবার পায়খানা করতো এখন প্রতিদিন ৩/৪ বার করে। আলিফের বাবার হাসিই তার সন্তুষ্টি ও শান্তি প্রকাশ করে।

ডাঃ সাব্বির করিম
সহকারী অধ্যাপক, শিশু সার্জারি বিভাগ
ঢাকা শিশু হাসপাতাল এন্ড বাংলাদেশ ইন্সটিটিউট অফ চাইল্ড হেলথ

প্ল্যাটফর্ম ফিচার রাইটার:
সামিউন ফাতীহা
শহীদ তাজউদ্দীন আহমদ মেডিকেল কলেজ, গাজীপুর

শেয়ার করুনঃ Facebook Google LinkedIn Print Email
পোষ্টট্যাগঃ

পাঠকদের মন্তব্যঃ ( 0)




Time limit is exhausted. Please reload the CAPTCHA.

Advertisement
Advertisement
Advertisement
.