ডিপার্টমেন্টাল পরীক্ষার অভিজ্ঞতা

লেখকঃ ডাঃ অনুজ কান্তি দাশ ।

ডিপার্টমেন্টাল এক্সাম পাশ করলাম। পরেরটা খুব সন্নিকটে। অনেকেই জিজ্ঞাসা করছেন কিভাবে পড়ব। আমি চরম ফাঁকিবাজ একজন মানুষ – তাই আমার সাজেশন বুঝে শুনে নিয়েন। আর আমার উপদেশটাকে ধৃষ্টতা হিসেবে নিয়েন না কেউ (বাচ্চা মানুষ)- শুধু নিজের অভিজ্ঞতার আলোকে লিখছি।
ডিপার্টমেন্টাল পরীক্ষা – কি এবং কেন?
সরকারী চাকুরিজীবিদের চাকুরী স্থায়ীকরণের ৩ টা ধাপ –
‪#‎পরপর‬ ২ বছর ACR- এ good marks
‪#‎Foundation‬ Training সম্পন্ন করণ
‪#‎ডিপার্টমেন্টাল‬ পরীক্ষা।
ডিপার্টমেন্টাল পরীক্ষার ৩ টা পত্র।
১ম পত্র – চাকুরী বিধি, জেনারেল ফাইন্যান্সিয়াল রুলস – আরও কত কিছু
২ য় পত্র – ১ম পত্রের মতই সিলেবাস। মজার ব্যাপার হল এই পত্রে সম্পূর্ণ পরীক্ষা আপনি বই দেখে দিতে পারবেন। তবে আরও মজার ব্যাপার হল এই পত্রেই বেশি ফেইল করে।
৩য় পত্র – বিষয় ভিত্তিক – মেডিকেল সায়েন্স রিলেটেড।
কি কি বই পড়বেন?
১ম ও ২য় পত্রের জন্য ফিরোজ মিয়ার সবুজ বই এবং হলুদ বই। সাথে জেনারেল ফাইন্যান্সিয়াল রুলস, সংবিধান,
৩য় পত্রের জন্য কোন বই লাগে না। আমি সাখাওয়াত সাহেবের গাইড বই পড়েছিলাম। তবে কোন প্রশ্নই কমন আসবেনা।
বিসিএস লিখিত পরীক্ষায় যেমন মনের মাধুরী মিশিয়ে লিখেছিলেন – এখানেও ঠিক তেমনি। কিছু থাকবে medical science এর খুব বেসিক কিছু community related জিনিস যেমন TB, STD, AIDS, Sanitation, IMR, MMR, EPI, MDG এগুলো।
৩য় পত্রে কেমন প্রশ্ন আসে তার একটু নমুনা দেখাচ্ছি –
#২০১৪ সনের বিশ্ব স্বাস্থ্য দিবসের প্রতিপাদ্য বিষয়টি বর্ণনা কর। প্রতিপাদ্যে উল্লিখিত ঝুঁকির কারণসমূহ প্রতিরোধের জন্যে স্বাস্থ্য বিভাগের গৃহীত কর্মপরিকল্পনাটি বিস্তৃত করুন
‪#‎বাংলাদেশের‬ জেলা ও উপজেলা হাসপাতালগুলিতে Infection Prevention and Control ব্যবস্থা বর্ণনা করুন
‪#‎দক্ষিন‬- পূর্ব এশিয়াতে পোলিও নির্মূলকরণ এর ইতিহাস ও পরিকল্পনা বর্ণনা করুন।
তাই আপনার জ্ঞানের পরিধি ওতটা বাড়ানোর দরকার নাই বরং বেশি বেশি করে পেজ কিভাবে ভরবেন সেই practice করুন।
১ম পত্রের preparation একটু কষ্টকর। ফিরোজ মিয়ার ২ টা বই ভাল করে পড়বেন। কিছু কিছু টপিকস থেকে প্রশ্ন আসেই – সব মিলিয়ে ৮ টা প্রশ্ন আসে – একটা থাকে বাধ্যতামূলক- টীকা। এ ছাড়া বাকি ৭ টা থেকে ৪ টার উত্তর দিতে হয়। আপনি অন্য বই না ধরে যদি শুধু এই দুইটা বই ভাল করে পড়েন তবেই ফুল আন্সার দিতে পারবেন গ্যারান্টি।
যেসব টপিক অবশ্যই পড়বেন-
‪#‎আচরণ‬ বিধি
‪#‎ছুটি‬ বিধিমালা
‪#‎সচিবালয়‬ নির্দেশনা
‪#‎পেনশন‬
‪#‎সংবিধান‬
‪#‎বেতন‬, ভাতা
‪#‎অবসর‬
‪#‎লিয়েন‬
এছাড়া অবশ্যই পড়বেন- প্রশাসনিক ট্রাইব্যুনাল আর ট্রেজারি রুলস, প্রফিডেন্ট ফান্ড
২য় পত্রের জন্য অবশ্যই মেইন বই নিয়ে যাবেন পরীক্ষার হলে। এখনকার ম্যাজিস্ট্রেটরা খুব স্মার্ট – এরা আপনি যেভাবেই গাইড বই নেন না কেন খুঁজে বের করবেই। আমাদের হল – এ সবারটাই বের করেছিল।
২য় পত্র পড়ার সময় দাগিয়ে দাগিয়ে পড়ুন – আর সূচীপত্রের মত বানাতে পারেন। কোন পেজ এ কি টপিক আছে। এ পত্রে ফেইল করার কারণ হল টপিক খুঁজে না পাওয়া। অবশ্যই এ পত্রে ধারা উল্লেখ করে দিবেন।
আর কি ? এ বারের প্রশ্ন সহজ হয়েছিল – তাই আমরা অনেকই লাকি। এসব বিরক্তিকর পড়া বারে বারে পড়া একটা অভিশাপের মতন। তবে অত সহজও না মনে হয় – অনেকেই যেকোন এক পেপারে ঠিকই আটকিয়েছেন। তাই প্রস্তুতি নেন যাতে আবার এই ঝামেলা না পোহাতে হয়।

ডক্টরস ডেস্ক

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Time limit is exhausted. Please reload the CAPTCHA.

Next Post

Conference News for Medical Students

Thu Dec 25 , 2014
1. কনফারেন্স নিউজ: আগামী মার্চে মেডিকেল স্টুডেন্টদের জন্য ইন্ডিয়াতে একটি আন্তর্জাতিক কনফারেন্স….. প্রতিষঠান: নর্থ বেংগল মেডিকেল কলেজ তারিখ: ৭ থেকে ৯ মার্চ, ২০১৫ স্থান: সুশ্রুতানগর, (শিলিগুড়ি, দার্জিলিং) ক্রাইটেরিয়া: যে কোন আন্ডার-গ্রাজুয়েট মেডিকেল স্টুডেন্ট কন্টেন্ট: ওয়ার্কশপ, কুইজ, ডিবেট, প্লেনারি, সেমিনার, পোস্টার প্রেজেন্টেশন, ওরাল প্রেজেন্টেশন, ইত্যাদি আরো অনেক প্রতিযোগীতা – এছাড়া স্টুডেন্টদের […]

সাম্প্রতিক পোষ্ট