• নিউজ

September 6, 2019 9:07 pm

প্রকাশকঃ

আমরা যারা এনাটমির লোক তারা জানি রেডিয়াস অস্থির নিম্নপ্রান্তের পিছন দিকে একটি উঁচু অংশ রয়েছে যার নাম হল Dorsal Tubercle of Lister. বাজারের যে কোন দোকানে বা ফার্মেসীতে দেখবেন মাউথ ওয়াশ পাওয়া যায়, নাম Lister Mouthwash or Listerine Mouthwash। মাইক্রোবায়োলজিতে যারা আছেন তারা জানেন একটি ব্যাকটেরিয়ার নাম, Listeria, যে Listeriosis নামের রোগ তৈরি করে। কখনও কি খেয়াল করেছেন এগুলু? আচ্ছা, এদের মাঝে যোগসূত্র কি?

হ্যাঁ, যার মাধ্যমে যোগসূত্র তাঁর নাম Joseph Lister।
Joseph Lister ছিলেন একজন ব্রিটিশ সার্জন, একই সাথে এন্টিসেপ্টিক সার্জারির পথিকৃত ছিলেন। তিনি Glasgow Royal Infirmary কর্মরত থাকাকালীন জীবানুমুক্ত অস্ত্রপোচার এর ধারনা প্রচার করেন এবং কার্বলিক এসিড দিয়ে সার্জারির যন্ত্রপাতিসহ ক্ষত পরিস্কার এর বিষয়টি প্রনয়ন করেন।

৫ এপ্রিল ১৮২৭ সালে জন্ম নেন তিনি, মৃত্যু ১০ ফেব্রুয়ারি ১৯১২। পিতার নাম Joseph Jackson Lister, যিনি compound microscope এর পথিকৃত ছিলেন।
শুরুতে কলা বিষয়ে পড়াশুনা করলেও পরবর্তীতে  University of London থেকে Bachelor of Medicine ডিগ্রি লাভ করেন এবং মাত্র ২৬ বছর বয়সে তিনি Royal College of Surgeons এ প্রবেশ করেন। ১৮৫৪ সালে স্কটল্যান্ডের Edinburgh Royal Infirmary তে সার্জন James Syme এর প্রথম সহকারী হন। ১৮৬৭ সালে জীবাণুনাশক হিসেবে কার্বলিক এসিডের ব্যাবহার আবিস্কার করেন। তখন থেকে কার্বলিক এসিড প্রথম এবং সার্জারিতে জীবাণুনাশক হিসেবে  সর্বাধিক ব্যবহৃত হয়। পরবর্তীতে তিনি James Syme এর কন্যা Agnes কে বিয়ে করেন। হানিমুন ছিল ফ্রান্স ও জার্মানিতে। এই সময় তারা সেখানকার মেডিকেল ইন্সটিটিউটগুলু ঘুরে দেখেন। এর মাঝেই স্ত্রী Agnes মেডিকেল রিসার্চ বিষয়ে আগ্রহী হয়ে উঠেন এবং বাকী জীবন Lister এর ল্যাব সহকর্মী হিসেবে কাটিয়ে দেন।

Lister এর জীবাণুনাশক আবিস্কারের পূর্বে ক্ষত পরিস্কার করতে বা সার্জারি করার পূর্বে হাত ও যন্ত্রপাতি জীবাণুমুক্ত করার প্রচলন ছিলনা। লুই পাস্তুর সেই সময় একটি গবেষণাপত্র বের করেন যা Lister এর দৃষ্টিগোচর হয়। লুই পাস্তুর বলেন সার্জারির পরে প্রদাহ কমানো সম্ভব তিন উপায়ে। Filtration, exposure to heat, or exposure to chemical solutions. Lister এই বিষয়ে উপসংহার টানেন যে প্রথম দুই পদ্ধতি মানবের জন্য অকার্যকর। ৩য় পদ্ধতিটি কার্যকর হতে পারে। তখন তিনি জীবানুনাশক আবিস্কারে মনোনিবেশ করেন। তিনি বিভিন্ন antiseptic solutions ব্যবহার করার পর কার্বলিক এসিডকে চূড়ান্ত করেন। কার্বলিক এসিড তখন পয়োনিস্কাশন নালাতে দুর্গন্ধ নিবারনে ব্যবহৃত হত। Lister কার্বলিক এসিডকে সারজিকেল যন্ত্রপাতি, ক্ষতস্থানে ব্যাবহার করে দেখেন যে এতে ইনফেকশন কম হচ্ছে।

পরে তিনি Antiseptic Principle of the Practice of Surgery শিরোনামে একটি প্রবন্ধ The British Medical Journal, Volume 90, Issue 2299 তে প্রকাশ করেন, যা 21 September 1867 তে প্রকাশিত হয়।
১৮৬৯ সালে তিনি University of Edinburgh এ Professor Syme এর স্থলাভিষিক্ত হন। এখানে তিনি antisepsis and asepsis বিষয়ে আরও উন্নততর পদ্ধতি আবিস্কারে মনযোগী হন। উনার খ্যাতি ছড়িয়ে পরে এবং তাঁর লেকচার শোনার জন্য দলে দলে লোক হাজির হন। অনেকেই তাঁকে “the father of modern antisepsis হিসেবে বিবেচনা করেন। ১৮৭৯ সালে antisepsis এ উনার অবদানকে মাথায় রেখে একটি মাউথওয়াশ এর নামকরন করা হয় Listerine mouthwash।

১৯৪০ সালে ব্যাকটেরিয়ার একটি গন এর নাম করন করা হয় Listeria। সার্জারিতেও উনার অবদান অসীম। ইংল্যান্ডে ব্রেইন টিউমার অপারেশনের ক্ষেত্রে উনি ২য় সার্জন। Mastectomy ও Patella fracture repair এর উন্নত পদ্ধতি তিনি প্রয়োগ করেন।
১৮৮৩ সালে উনাকে ব্যারনেট এবং ১৮৯৭ সালে ব্যারন হিসেবে সম্মানিত করা হয়।
ব্যাক্তি জীবনে তিনি ধার্মিক, লাজুক, নির্লোভ ব্যাক্তি ছিলেন।

১৮৯২ সালে তাঁর স্ত্রীর মৃত্যুর পর তিনি প্র্যাকটিস থেকে অবসর নেন। সব কিছু থেকে আগ্রহ হারিয়ে ধর্মকর্মে মনোনিবেশ করেন।

১৮৯৫ থেকে ১৯০০ সাল পর্যন্ত তিনি Royal Society এর সভাপতি ছিলেন।

১৮৯৭ সালে তিনি প্রথম ফিজিশিয়ান হিসেবে the House of Lords এ স্থান লাভ করেন

১৮৯৯ সালে British Institution of Preventive Medicine এর নামকরন করা হয় তাঁর নামে, যা পূর্বে Edward Jenner এর নামে ছিল।

৮৪ বছর বয়সে ১০ ফেব্রুয়ারী ১৯১২ সালে তিনি মৃত্যুবরণ করেন এবং Hampstead Cemetery তে তাঁকে শায়িত করা হয়।

১৯৬৫ সালে তাঁর সম্মানে ২টি পোস্টাল ষ্ট্যাম্প প্রকাশ করা হয়।

John Hunter ছাড়া তিনিই ২য় সার্জন London এ যার মনুমেন্ট রয়েছে। গ্লাসগোতে Lister এর একটি স্ট্যাচু আছে।
Glasgow Royal Infirmary তে তাঁর নামে একটি ভবন রয়েছে। Antarctica তে একটি পর্বতের নাম করা হয়েছে Mount Lister।
Lister’s dressing, Lister forceps, Lister’s method এ জড়িয়ে আছে তাঁর নাম।

অধ্যাপক ডাঃ মোঃ আশফাকুর রহমান
বিভাগীয় প্রধান, এনাটমি
আদ-দ্বীন আকিজ মেডিকেল কলেজ, খুলনা

Platform  feature  writer
Sumaiya Nargis
STAMC ( 2016/17)

শেয়ার করুনঃ Facebook Google LinkedIn Print Email
পোষ্টট্যাগঃ Semi Academic,

পাঠকদের মন্তব্যঃ ( 0)




Time limit is exhausted. Please reload the CAPTCHA.

Advertisement
Advertisement
Advertisement
.