• অতিথি লেখা

April 1, 2017 9:45 am

প্রকাশকঃ

চিকিৎসা শাস্ত্রে উচ্চ শিক্ষা (যুক্তরাজ্য) ||ধারাবাহিক লিখনী -০৩
——————————————–

এমবিবিএস / বিডিএস -এ ভালো রেজাল্ট নেই !! তাই বলে যে , বিদেশে উচ্চ শিক্ষা নিতে পারবেন না -এর কোনো ভিত্তি নেই | আপনি এম বি বি এস / বি ডি এস -পাশ করেছেন , IELTS -স্কোর যোগ্য আছে ; মানে আপনি ভর্তি যোগ্য |

✅✅১| প্রথমে যে বিষয়টি বলবো , আপনি বিদেশে পড়তে যাবার আগে নিজের সিদ্ধান্তে অটুট কিনা ? আরেকবার ভাবুন || পরিবারের অভিভাবক -সদস্যদের সাথে কথা বলুন |তারপর সিদ্ধান্ত নিন ।যদি আপনার সিদ্ধান্ত -হ্যা হয় ,তাহলে পরের বিষয়গুলি ফলো করুন |

✅✅২|এম বি বি এস ,বিডিএস – একটি ব্যাচেলর/অনার্স লেভেলের ডিগ্রী | যুক্তরাজ্যে চিকিৎসা বিঁষয়ে পড়তে হলে -এ ডিগ্রী টি যথেষ্ট | অনেকের মনে প্রশ্ন -আমি ১/২/৩ বার সাপ্লি এক্সাম (রি টেক ) দিয়েছি ,আমি আবেদন করতে পারবো কি না ? ? উত্তর -অবশ্যই পারবেন ।আমার ১/২ বছর বেশি সময় লেগেছে ,পাশ করতে । আমি আবেদন করতে পারবো কি না ? অবশ্যই পারবেন ।আবার অনেকে বলবে ,আমার মার্ক ৬০-৭০ এর মধ্যে ,আবেদন করতে পারবো কি না ? উত্তর -হ্যাঁ ,পারবেন । আবেদন গ্রহণ হবে কি না ? উত্তর -অবশ্যই হবে | এবার আসি -কাদের আবেদন গৃহীত হবে না / সম্ভাবনা খুবই কম ? যারা ইন্টার্ণ শীপ শেষের পর -৩/৪ বছরের অধিক ,অনিয়মিত/নিয়মিত চাকুরী করেছেন এবং কোনো রকম উচ্চতর কোর্স / বিষয়ে অধ্যয়ন রত করেন নি ,চাকুরী কালীন সময় | তবে , যদি তারা কোনো সার্টিফিকেট / ট্রেনিং / যেকোনো ট্রেনিং কোর্সে থাকেন ,আবেদন করতে পারবেন | আরেকটি বিষয় বলে রাখি , আপনার IELTS স্কোর যত ভালো হবে ,আপনার ভর্তির সম্ভাবনা ততোই প্রকট থাকবে । এমবিবিএস / বিডিএস ৬০+ মার্ক যথেষ্ট | তবে ২/১ টি বিষয়ে একটু মার্ক বেশি চাইতে পারে , তবে সেটি ৭০ + হলে যথেষ্ট ।আর কিছু নতুন মেডিকেল আছে যাদের WHO -Approval নেই , তারাও আবেদন করতে পারবেন |

✅✅৩| এবার আসি , বাংলাদেশে এমবিবিএস পাশ করে আপনি যুক্তরাজ্যে চিকিৎসক হিসেবে প্রাকটিস / প্রেসক্রাইব করতে পারবেন কি না ??? উত্তর -না | কারণ যুক্তরাজ্যে এমবিবিএস , অন্য সব স্নাতক বিষয়ের মতন একটি ডিগ্রী |রোগীর ব্যবস্হাপত্র লিখতে হলে অবশ্যই আপনাকে GMC -General Medical Council ,UK -এর রেজিস্টেশন থাকতে হবে |এই রেজিস্টে্রেশন পেতে হলে ( BMDC -অনুরুপ ) , আপনাকে অবশ্যই PLAB (Professional & Linguistic assessments Board ) exam পাশ করতে হবে |অথবা MRCP করে GMC থেকে রেজিস্ট্রেশন নিতে হবে |তবে PLAB পরীক্ষায় বসতে হলে ,অবশ্যই IELT-7.5 (Total) & কোনো মডিউল -এ 7 -এর নিচে হলে হবে না |প্লাব পাশ করলে ,Plab part-2 , ২ বছরের মধ্যে পাশ করে আপনি যুক্তরাজ্যে GP হিসেবে প্রাকটিস করতে পারবেন | আর MRCP -এর 3 টা পার্ট কমপ্লিট করে GMC রেজিস্টেরশন নিতে সময় লাগবে ৪ বছরের মতোন , তবে রেজিস্ট্রেশনের এক্ষেত্রে IELTS -7.5 বাধ্যতামূলক নয় , আপনি ট্রেনিং করলে ,আপনার প্রফেসর / ট্রেইনার রেফারেন্স করবে আপনাকে & ট্রেনিং সময় অর্জিত স্কিল কে,IELTS -7.5 সমতুল্য ধরা হবে |

✅✅৪| এবার আসি ,আপনি কিভাবে পড়তে চান ? ক্লিনিকাল /নন ক্লিনিকাল | সিদ্ধান্ত -আপনার । ক্লিনাকাল হলে MRCP/ MRCA/ MRCS/FRCS করতে হবে |। নন- ক্লিনিকাল হলে , মাস্টার্স / ডিপ্লোমা /এম ফিল / পোস্ট গ্রেড সার্টিফিকেট কোর্স / মাস্টারস রিসার্চ |। স্কলারশীপ সহ / নাকি ছাড়া ? স্কলারশীপ এর প্রথম & প্রধান শর্ত IELTS স্কোর ৭/৭.৫+ বাধ্যতামূলক |

✅✅৫| এবার আসি , কি কি স্কলারশীপ আছে , বাংলাদেশি স্টুড্ন্টদের জন্য ? ধরনগুলি আগে জেনে নেই – **যুক্তরাজ্য সরকার কর্তৃক, * *বিশ্ব বিদ্যালয় কর্তৃক ,** বিভিন্ন সংগঠন / প্রতিষ্ঠান/ সংস্হা কর্তৃক | প্রচলিত স্কলারশীপ গুলি কি কি ?? – 1. British chevening scholarship 2. Commonwealth Scholarship 3.Commonwealth shared scholarship 3. University Scholarship 4 .Erasmus Mundus Scholarship .স্কলারশীপের একটি নির্ধারিত ডেডলাইন থাকে সেটি খেয়াল করবেন | যেমন -Commonwealth / Erasmus Mundus -কোর্স শুরুর বেশ কয়েক মাস আগে থেকে আবেদন শুরু করে | বাংলাদেশ সরকারের শিক্ষা মন্ত্রণালয় কর্তৃক আপনাকে স্কলারশীপের জন্য যোগ্য হিসেবে মনোনীত হতে হবে , সেটি Commonwealth scholarship এর জন্য | প্রতি বছরের মার্চে এই ডেডলাইন শেষ হয়ে যায় | তাই -২০১৭ আর আবেদনের সুযোগ নেই , কারণ এখন এপ্রিল এর শুরু | বাকি স্কলার শীপ গুলি ভার্সিটির আবেদনের সাথে করতে হয় |

✅✅৬|এবার আসি কিভাবে ভর্তি / স্কলারশীপের জন্য আবেদন করবেন !! প্রথমে Google -এ কতকুলি সাইট সার্চ করুন – UCAS, British Council , IDP Ielts ,Findmaters etc App -এ বের করুন | তারপর প্রয়োজনে সাইট গুলিতে রেজিস্টেশন করতে হতে পারে , রেজিস্ট্রেশনের জন্য ইমেল আইডি লাগবে | পরবর্তি লগ ইন এর জন্য আইডি পাসওয়ার্ড সংরক্ষিত রাখুন | প্রতিটি সাইটে আপনি কিছু অপশন পাবেন -যেমন , Choose Your Subject / Area of Study , Level of course -Msc/PgCert/MResearch/Mphil/Diploma, Type of course – Taught / Distance (অবশ্যই Taught যারা UK তে অবস্হান করে পড়তে চান ), Location -London / Birmingham /Leicester / Bristol etc .এর পরে সার্চ রেজাল্ট হিসেবে অনেক গুলি ভার্সিটি র নাম আসবে , সিলেক্ট করুন | বিশ্ববিদ্যালয়ের ওয়েব এ ক্লিক করে আবেদন শুরু করুন |আবেদন শুরু করার আগে সমস্তRequirements ,Fees ,Fundings ,Location ,Accommodation ,Transport চেক করুন | তারপর আপনাকে Varsity er application এ একটি SOP / statement of Purpose ( Subject টি নিয়ে কেন পড়তে চান , ভবিষ্যত পরিকল্পনা -ইত্যাদি লিখুন মিনিমাম ১০০০ শব্দ | তারপর আবেদন সাবমিট করুন | Application no / Reference no . save করে রাখুন |

✅✅৭| এবার আসি Scholarship প্রসংগে , আগে স্কলারশীপ রিকোয়ারমেন্ট ভালো করে পড়ুন | তারপর খুবই সুন্দর করে গুছিয়ে ২০০০ +শব্দে SOP লিখে রেডি করুন |Varsity Requirements যদি সঠিক থাকে , তবে স্কলারশীপের জন্য আবেদন করুন |

✅✅৮| এবার আসি কিভাবে সমস্ত পেপারস রেডি করবেন ? প্রথমে আপনাকে সিদ্ধান্তে আসতে হবে কোন সেশনে আসবেন আপনি ???জানুয়ারী / সেপ্টম্বর ???? জানুয়ারী সেশনে সাধারণত যুক্তরাজ্য/ ইইউ শির্ক্ষার্থী অনেক বেশি থাকে | তাই , আবেদন করতে পারেন , তবে Scholarship নাই বললেই চলে | ভিসা পাওয়া যায় ,তবে একটু টাফ সব কিছুই | এ সেশন না পথন্দ করাই ভালো | পরের সেশন -সেপ্টম্বর | বাংলাদেশ দের জন্য পারফেক্ট ,এ সেশনে ইউকে/ইইউ স্চুড্ন্ট খুবই কম থাকায় , ভিসা সম্ভাবনা -১০০% থাকে |আবেদন করার পু্র্বে ,আপনার পাসপোর্ট কপি সহ অন্যান্য পেপারস রেডি রাখুন | বিশ্ববিদ্যালয়ে -আবেদন করার জন্য যে পেপারস গুলি লাগবে ,১| পাসপোর্ট ২। কেনো ভিসা থাকলে তার কপি ৩| পুর্বের কোনো ভিসা বাতিল হলে তার কপি ৪| এসএসসি /এইচএসসি সার্টিফিকেট + ট্রান্সক্রিপ্ট ৫| ইন্চারনশীপ ৬| BMDC , রেজিস্টের্টেশন ৭|রেফারেন্স লেটার (অধ্যাপক হলে ভালো হয় – ২ জনের রেফারেন্স লেটার ) ৮| চাকুরী করলে ,অভিজ্ঞতা পত্র |

✅✅৯| শুরু করবেন কিভাবে ??? প্রথমে IELTS -exam দিন । রেজাল্ট ১৪ দিন পর পাবলিশ করে | UKVI IELTS এক্সাম রেজাল্ট হাতে পাবার পর আর বিন্দু মাত্র দেরি করবেন না | এরপর বিশ্ববিদ্যালয় গুলিতে আবেদন করুন | সর্বোচ্চ ০৪ টি ভার্সিটি তে আবেদন করুন | আবেদন কমপ্লিট করতে কমপক্ষে ১৫ দিন লাগতে পারে , ভার্সিটি এখন থেকে দেখতে পারেন । আবেদন করার ৭/১৪ দিনের মধ্যে অফার লেটার চলে আসে |তারপর Bank eভার্সিটির টিউশন ফি জমা দিন | বাংলাদেশ এ- EBL bank সবথেকে দক্ষ । এরা ১ দিনে স্টুডেন্ট একাউন্ট ওপেন করে , পরের দিন /ঐ দিন ই টাকা পাঠায় | টাকা পাঠানোর ৩/৫ দিনের মধ্যে আপনাকে ভার্সিটি টাকা প্রাপ্তির কথা মেইল করবে | আপনি সব থেকে ভালো হয় যদি ব্যাংকে টাকা রাখতে পারেন আগে ( ভার্সিটি তে আবেদন এর আগে ) , কারণ ব্যাংকের স্টেটমেন্ট -এ কমপক্ষে ১৫/২০ লাখ টাকা , কমপক্ষে ১ মাস আগে থেকে ডিপোজিট আছে তা দেখাতে হয় |ভারসিটি টিউশন ফি পেলে আপনাকে -অনলাইন স্কাইপি ইন্টার ভিউ জন্য তারিখ দিবে ৭/১০ দিনের ভিতর | এরপর ইন্টার ভিউ রেজাল্ট ৩/৫ দিনের মধ্যে জানাবে এবং Confirmation Letter (CAS letter ) পাঠাবে ৭/১০ দিনের মধ্যে |ইন্টার ভিউ খুব সহজ হয় ( জাস্ট আপনার পেপারস আর কথার মিল আছে কি না , ভার্সিটি , কোর্স নিয়ে ১/২ টা প্রশ্ন করবে , যেমন – ভার্সিটির ঠিকানা
, কোর্স গুলির নাম ইত্যাদি (পরে আরেক দিন এ বিষয়টি নিয়ে ডিটেইলস লিখবো ) | এরপর সন্তুষ্ট হলে ৫/৭ দিনের মধ্যে CAS letter পাঠাবে | তারপর আপনি Visa জন্য অ্যাপ্লাই করবেন |ভার্সিটি ইন্টার ভিউ & Visa র জন্য ইন্টারভিউ একই রকম প্রায় | Visa Interview এর ৭/১০ দিনের মধ্যে Visa পাবেন | আমি সৌভাগ্যবানদের মধ্যে ০১ জন ছিলাম । মাত্র ১ দিনে Visa পেয়েছি ( অবিশ্বাস্য ) | ডাক্তারদের ভিসা হয় প্রায় 100 % |

✅✅১০ | যে কাজগুলি করবেন না ! ! -কোনো মিথ্যে তথ্য দিবেন না | আত্নীয় স্বজন ইউকে তে থাকলেও , না বলাই ভালো , প্রশ্ন কম করবে | আবেদন পত্রে এম বি বি এস রেজাল্ট *****পাশ **** লিখবেন না । মার্ক কত % (৬০%,৭০% ) সেটা লিখবেন | বার্থ সার্টিফিকেট & পিতার বার্থ সার্টিফিকেট ইংরেজীতে কেনো অক্ষর যেনো ভুল না থাকে খেয়াল করবেন | কোনো সার্টিফিকেট হারিয়ে ফেললে জিডি করি নোটারী করে ইংরেজিতে ট্রান্সলেট করুন & আবেদন এ সেটি উল্লেখ করবেন | কোনো ভিসা রিফিউজাল হিস্ট্রি থাকলে সেটি উল্লেখ করুন |স্চুডেন্টদের এ ভিসা টাইপ কে – Tier -4 (General student visa ) বলে ||

✅✅১১| যারা বিবাহিত আছেন ,তাদের মাঝে যে কেউ Tier -4 ভিসা পেলে , স্বামী/ স্ত্রী / সন্তান ডিপেন্ডেন্ট ভিসা -তে যেতে পারবেন | যারা ডিপেন্ডেন্ট ভিসা তে যাবেন , তাদের কোনো ভার্সিটি আবেদন না করলেও চলবে | তারা চাকুরী ও করতে পারবেন / পড়াশুনা করতে পারবেন | যতখুশি ততো কাজ করতে পারবেন , টাকা ইনকাম করতে পারবেন অনেক বেশি |তাই বিয়েটা করলে সুবিধা বেশি পাবেন ||| ( ভিসা & ভিসা টাইপ ইত্যাদি নিয়ে আরেকদিন আলোচনা করবো )
———————————————-

পরবর্তী টপিকস – Interview( Varsity& Visa) , PLAB , MRCP – Details .

ডা: সুমন প্রধান |
রংপুর মেডিকেল কলেজ , ব্যাচ -৩৮ তম |
লন্ডন , যুক্তরাজ্য ||

শেয়ার করুনঃ Facebook Google LinkedIn Print Email
পোষ্টট্যাগঃ

পাঠকদের মন্তব্যঃ ( 39)

  1. USA র ব্যাপারে information দিলে খুব উপকার হত

  2. Sharlina Shefa Tanzila Akter Snigdha Lucky Asia Akther Shopna Rifat Noor Tisha Rebeka Tanha see kar pic

  3. Yes ! It was me . I was Ex lecturer -DCIMCH

  4. Ratz Ratul says:

    MRCA!!!!! is it Anesthesia?

  5. Dekh Tasnim Afroz Munni

  6. মোহাম্মাদ আতাউদ জাহান রেজাউল MD Monirujjaman Mahmudur Rahman Nabil Shafiqul Islam Farabi




Time limit is exhausted. Please reload the CAPTCHA.

Advertisement
Advertisement
.