চিকিৎসকের অক্লান্ত পরিশ্রমের উপহার-সুস্থতার হাসি

গতকালের পত্রিকায় কিছু শিশু কিশোরের ডেংগিতে অতি আকস্মিক মৃত্যুর আবেগঘন ঘটনা পড়ে মনটা খারাপ হয়ে গেল (ডাক্তারদের নাকি মন খারাপ করতে নেই)।

নীচের তিনটি ছবিতে ফুটে উঠেছে জীবনের তিন রকমের মুহূর্ত। কত আনন্দময় থাকে স্বাভাবিক জীবন, আকস্মিক প্রাণঘাতী অসুস্থতা কিভাবে সব আনন্দ ম্লান করে দেয় আর সুস্থ জীবন ফিরে পাওয়ার আনন্দ কত অকৃত্রিম।

একজন মানুষ যখন অসুস্থ হয়, শুধু তার জীবনই সংকটাপন্ন হয় না। তার আবেগ বিপন্ন হয়। তার অর্জনগুলো হুমকির মুখে পড়ে। আমাদের ছোট্ট অনুভবের কথাই ধরুন না। এই অল্পবয়সেই সে একটা টি ভি বিজ্ঞাপনের মডেল।


প্রাণসংহারী ডেংগির কাছে কিন্তু এর আলাদা কোন মূল্য নেই।জীবন তার সংকটাপন্ন হয়ে পড়ে ডেংগির আক্রমণে।

অনেক চড়াই-উতরাই পেরিয়ে অবশেষে জীবনের কাছে ফিরে আসে এই ক্ষুদে প্রতিভা। এটি শুধু একটি জীবন ফিরে পাওয়ার ব্যাপার নয়, একটি অমিত সম্ভাবনা টিকে যাওয়ার গল্প।

(অনুভবের সাথে তার প্রিয় ডাক্তার তানজিদা। রেসিডেন্ট ফেইজ বি।)

মনে রাখতে হবে মনুষ্যসৃষ্ট এই বিপর্যয় কেড়ে নিচ্ছে অনেক উদীয়মান প্রতিভা, অনেক দক্ষ কর্মশক্তি। চিকিৎসকরা এজন্য দায়ী না হলেও ব্যক্তিগত জীবন বিপর্যস্ত করে, জীবনের ঝুঁকি নিয়ে এ বিপর্যয়ের ক্ষয়ক্ষতি ঠেকাতে লড়ে যাচ্ছেন প্রতিনিয়ত। সবসময় জিততে পারছেন না। যখন পারছেন,
তখন এরকম একটা হাসি তো অন্তত উপহার পাচ্ছেন।

 

কৃতজ্ঞতাঃ মাহবুব মোতানাব্বি
ব্যাচ ৩৫,
সেশন ৭৬-৭৭,
ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ।
(ছবি ও ঘটনা অনুমতি সহকারে প্রকাশিত)

Urby Saraf Anika

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Time limit is exhausted. Please reload the CAPTCHA.

Next Post

প্রস্তাবিত দুই বছর ইন্টার্ণশীপ নীতিমালা বাতিলের দাবীতে বিএমডিসি কর্তৃপক্ষের নিকট স্মারক লিপি প্রদান করেছে মেডিকেল শিক্ষার্থীরা৷

Mon Sep 9 , 2019
প্রস্তাবিত দুই বছর ইন্টার্ণশীপ নীতিমালা বাতিলের দাবীতে গত ৩১ শে আগস্ট স্যার সলিমুল্লাহ মেডিকেল কলেজ প্রাঙ্গণে যে আন্দোলনের সূচনা হয়েছিলো খুব দ্রুত তার জোয়ার বয়ে যায় বাংলাদেশের সকল মেডিকেল ও ডেন্টাল কলেজ জুড়ে। এতোদিন আমাদের আন্দোলনগুলো নিজ নিজ ক্যাম্পাসে সীমাবদ্ধ থাকলেও সংঘবদ্ধভাবে ঢাকার মেডিকেল কলেজগুলো আন্দোলনের চাকা অন্যমাত্রায় নিয়ে যাবে […]

সাম্প্রতিক পোষ্ট