কোভিড-১৯: কুমিল্লায় গত ২৪ ঘণ্টায় ১২ জনের করোনা শনাক্ত

১৬ এপ্রিল, ২০২০

গতকাল বুধবার (১৫ এপ্রিল) এক দিনেই কুমিল্লা জেলায় ১২ জনের করোনা ভাইরাস শনাক্ত হয়েছে। এ নিয়ে দুই দিনে এই জেলায় মোট ২১ জনের করোনা ভাইরাস শনাক্ত হলো। জেলাটিতে এখন পর্যন্ত করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন মোট ২৯ জন।

প্রতিদিনই শনাক্তকৃত রোগীর সংখ্যা বাড়ছে। সংক্রমণ ছড়িয়ে পড়ছে নতুন উপজেলায়ও। কুমিল্লার ডেপুটি সিভিল সার্জন ও জেলা করোনাবিষয়ক ফোকাল পারসন মো. শাহাদাত হোসেনের দেওয়া তথ্যমতে, ‘যে ১২ জন শনাক্ত হলেন, তাঁদের মধ্যে দাউদকান্দিতে তিনজন, চান্দিনায় তিনজন, তিতাস, বরুড়া, বুড়িচং, হোমনা, চৌদ্দগ্রাম ও দেবীদ্বারে একজন করে মোট ১২ জন আক্রান্ত হয়েছেন। এর আগে গত মঙ্গলবার (১৪ এপ্রিল) তিতাস উপজেলায় ৩ জন, দাউদকান্দিতে ২ জন এবং বুড়িচং, ব্রাহ্মণপাড়া, চান্দিনা ও সদর দক্ষিণে ১ জন করে ব্যক্তির করোনা ভাইরাস শনাক্ত হয়।’

জেলা সিভিল সার্জন দপ্তর সূত্রে জানা গেছে, কুমিল্লা জেলায় এ পর্যন্ত ২৯ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। এর মধ্যে তিতাস উপজেলায় আক্রান্তের সংখ্যা বাবা–মেয়েসহ ৮ জন, বুড়িচংয়ে একই পরিবারের ৩ জনসহ ৫ জন, দাউদকান্দিতে ৫ জন, চান্দিনায় ৪ জন, দেবীদ্বারে ২ জন এবং হোমনা, বরুড়া, ব্রাহ্মণপাড়া, সদর দক্ষিণ ও চৌদ্দগ্রাম উপজেলায় একজন করে। এর মধ্যে একজন মারা গেছেন, তিনি দেবীদ্বার উপজেলার বাসিন্দা ছিলেন।

কুমিল্লার ডেপুটি সিভিল সার্জন মো. শাহাদাত হোসেন বলেন, “নববর্ষের প্রথম দিন অর্থাৎ ১৪ এপ্রিল, মঙ্গলবার নয়জন এবং দ্বিতীয় দিন বুধবারে ১২ জন মোট ২১ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। এর আগে আটজনের করোনা শনাক্ত হয়। তাঁদের চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে।”

প্রসঙ্গত, কুমিল্লার নতুন নতুন উপজেলায় দিনদিন করোনা ভাইরাস ছড়িয়ে পড়ছে। তাই করোনা সংক্রমণ রোধে জনগণকে ঘর থেকে বের না হওয়ার জন্য জোর অনুরোধ জানান কুমিল্লার ডেপুটি সিভিল সার্জন মহোদয়।

করোনা প্রতিরোধে আতঙ্কিত না হয়ে সচেতন হয়ে, নিজগৃহে অবস্থান করেই সুস্থ ও নিরাপদ থাকা সম্ভব।

নিজস্ব প্রতিবেদক/ অংকন বনিক জয়

প্ল্যাটফর্ম স্টাফ রিপোর্টার

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Time limit is exhausted. Please reload the CAPTCHA.

Next Post

নিঃশ্বাস আমার বন্ধু

Thu Apr 16 , 2020
১৬এপ্রিল, ২০২০ বর্তমানে আমরা সবাই কমবেশি মানসিক চাপে রয়েছি কোভিড-১৯ এর জন্য। মানসিক চাপ ব্যপারটি অদৃশ্য হলেও এর প্রভাব কিন্তু মারাত্মক। মানসিক চাপের কারণে নার্ভাস সিস্টেমের একটি প্রতিবর্ত ক্রিয়ার উদ্ভব ঘটে যা ‘ফাইট এন্ড ফ্লাইট’ রেসপন্স। যেমন, রাস্তায় একটি বিড়াল বা কুকুরের উপস্থিতি অগ্রাহ্য করা বা সেটাকে তাড়িয়ে দেওয়া হচ্ছে […]

সাম্প্রতিক পোষ্ট