কি ভাবে আপনার শিশু ওজন বাড়াবেন

সবাই বাচ্চার ওজন বাডাতে চায়। মোটা বাচ্চা মানেই সুস্থ , শুকনো বাচ্চা মানে অসুস্থ তা কিন্তু নয় । ওজন কমের দিকে , অন্য কোন অসুখ নেই , ঘন ঘন অসুস্থ হয় না , এ রকম বাচ্চার আসলে তেমন কোন অসুবিধা নেই । এটা অনেকসময় পরিবেশগত বা পারিবারিক । অনেক বাচ্চা কম খেয়েই ওজন ঠিকক থাকে ও নিয়মিত বাডে ।এ রকম হলে চিন্তার কিছু নেই । মা রা বলে , সবাই বলছে বাচ্চা শুকনো এগুলিতে কান দেবেন না । সুস্থ থাকলেই চলে । ফাষ্টফুডের যুগে ওজন কমানোটাই সমস্যা । একটু বড হলেই মানে টিন এজে পডলেই অনেকের ওজন বাডা শুরু হয় । একটু ধৈর্য্য ধরলেই হয় । বাচ্চার আদর মানেই কিন্তু বেশী খাওয়ানো নয় বরং যত্ন টা খাওয়ার উপর না দিয়ে তাকে কোয়ালিটি টাইম দেয়া বা তার মানসিক স্বাস্হ্যের দিকে নজর দেয়া বেশী জরুরী ।

21616368_1695350033830809_2844350666471976819_n

pedi
১. স্বাস্হ্যকর পদ্ধতিতে ওজন বাডাতে হলে , প্রথমেই ডাক্তার্র কাছে জেনে নিন , বয়স এবং উচ্চতা অনুপাতে তার ওজন ঠিক আছে কিনা , কতটুকু রেন্জে ওজন রাখতে হবে । এটা চার্ট করা আছে । ও যদি চার্টেই থাকে , তাহলে চিন্তার কিছু নেই । আর যদি সত্যিই বয়স ও উচ্চতা অনুপাতে ওজন কম থাকে তাহলে খাওয়ার দিকে নজর দিন ।
২. দিনে ৫ বার ই খাবার দেবেন । তিন টা বড খাবার সকাল, দুপুর , রাত । এবং মাঝখানে দুটা নাস্তা । এই নাস্তা চাইলে আরো দুবার দিতে পারেন ।
সকাল ৮:০০ টায় : সকালের নাস্তা
১১:০০ টায় : একটা স্ন্যাক্স
০১: ০০ টায় : দুপুরের ভাত
০৪: ০০ টায় বিকালের নাস্তা বা স্ন্যাক্স
০৬: ০০ টায় আরেকটি স্ন্যাক্স
০৯:০০ টায় রাতের খাবার

এভাবে ৩ ঘন্টা পর পর মিল টাইম সেট করতে পারেন । মাঝের সময় টুকু , কোন খাবার দিবেন না । স্ন্যাক্সগুলো বেশী পুষ্টিকর করে তৈরী করুন । নীচে কিছু পুষ্টিকর স্ন্যাকস দেয়া হল ।

৩.সকালের নাস্তা কোন ভাবেই বাদ দেবেন না । অনেক বাচ্চা সকালে খেতে পারে না । একটু দেরী করে খেতে দিন বা স্কুলে ভারী টিফিন দিন ।

৪. কি খাবার দিলে ওজন বাডবে :
এটা সবাই জানে , ডিম , দুধ , দই , মাছ , মাংস , বাদাম , ফলমুল , ইত্যাদি

৫ . কি ভাবে দেবেন :
:প্রতিদিন একটা বা দুটা ডিম দিন । এক ভাবে খেতে না চাইলে অন্য ভাবে দিন । পোচ , পুডিং , এগশেক, সিদ্ধ , পানিপোচ , মামলেট ।
:দুধ দিন দুই বেলা । খেতে না চাইলে দই , দই এর সাথে ড্রাই ফ্রুট কিসমিস , বাদাম মাশাতে পারেন । পনির দিতে পারেন ।
দুধ , ডিম , চিনি মিশিয়ে গরম করলেই এগশেক তৈরী হয় । খেতে মজা ও স্বাস্থ্যকর ।
:কার্বোহাইড্রেট সমৃদ্ধ ফল কলা দিন । খেতে না চাইলে , দুধে মিশিয়ে বানানাশেক বানিয়ে দিন । এভাবে আম , পেপে , যে কোন মৌসুমি ফল বা শেক বনিয়ে দিন।
:শুকনো ফল খেজুর , কিসমিস , বাদাম এতে ক্যলরি বেশি । সুযোগ হলেই এগুলো খেতে দিন , দই এর সাথে মিশিয়ে দিতে পারেন
:পী নাট বাটার খুব স্বাস্হ্যকর । বাসায় বানিয়ে দিন । এককাপ চানাবাদাম , আধাকাপ চিনি , এক চা চামচ ঘি । ব্লেন্ডারে ব্লেন্ড করুন। হয়েগেল তৈরী । পাউরুটি বা বিস্কিটে লাগিয়ে দিন।
: ডিম দিয়ে পাস্তা , নুডুলস তৈরী করে দিন ।
: আলু ভেজে ফ্রেন্চ ফ্রাই করেদিন ।
: চিকেন বা মাছ ফিলে করে ময়দায় ডুবিয়ে হাই ক্যলরি ফ্রাই তৈরী করেদিন ।
: আলু বা দই , চা এতে ক্রিম মেশাতে পারেন,
: starchy সব্জী আলু , ফুলকপি , মিষ্টি কুমডা , মিষ্টি আলু বেশী বেশী দিন ।,
: পাউরুটি বাটার লাগিয়ে দিন ।পনির ও দিতে পারেন ।
: বুটের ডালের , মসুর ডালের , সুজির হালুয়া করতে পারেন
: প্রতিদিন বাসায় ফলের রস তৈরী করে দিন।
: প্রচুর ফলমুল খেতে দিন
: প্রচুর পানি পান করার অভ্যাস রাখুন।

৬: দিনে ৫০০ ক্যালরি খাবার এক্সট্রা দিন , এতে তার সপ্তাহে , দুসপ্তাহে ১ পাউন্ড ওজন বাডবে ।
৭: রাতে ঘুমানোর আগে এক গ্লাস দুধদিন ।
৮: হাইপ্রোটিন , হাই কার্বোহাইড্রেট , হাই ফাইবার এবং মধ্যম মানের ফ্যাট দিন ।
৯: যা দেবেন ঘরে তৈরী করে দিন । দোকানের বার্গার , জুস , কোক ফান্টা , চিপস এসব একেবারেই দেবেন না ।
১১: খাওয়ার আগে পানি খেতে দেবেন না ,
১২: প্রতি মিলের পরেই একটা কলা বা বেনানা শেক খেতে দিন ।
১৩: প্রতিদিন অল্প অল্প করে খাওয়ার পরিমান বাডান , একসাথে বেশী দিতে গেলে ডায়রিয়া হতে পারে
১৪ : রেগুলার ব্যায়াম বা হাটার অভ্যাস রাখুন । কিন্তু এরোবিক্স করা যাবে না ।
১৫: সকালের নাস্তায় অবশ্যই একটা বানানামিল্ক শেক বানিয়ে দিন ।
১৬: খাবার সাজিয়ে দিন । বড প্লেটে একবারে বেশী করে খাবার নিন , কিছু সাজানো ছবি দেয়া হলো
১৭: ভাল ঘুম হয় যেন লক্ষ্য রাখুন ।
১৮: কিছু হাই ক্যলরি খাবার হল পনির , পুডিং , বাদাম , বাটার , ডিম , মিষ্টি আলু, পি নাট বাটার , দুধ , দই , মাংস , মাছ।
১৯:প্রতি সপ্তাহে ওজন মাপুন ও লিখে রাখুন । চার্টে চলে আসলেই , ওজন বাডানো ছেডে দিন ।
২০ : মনে রাখবেন বেশী মোটা মানেই কিন্তু সুস্থ নয়

ডা: কামরুন নাহার লুনা ,
শিশু বিশেষজ্ঞ ।

drferdous

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Time limit is exhausted. Please reload the CAPTCHA.

Next Post

এমডি/এমএস রেসিডেন্সি পরীক্ষা ২০১৮ঃ বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ

Mon Sep 25 , 2017
এমডি/এমএস রেসিডেন্সি প্রোগাম, মার্চ – ২০১৮ সালের ভর্তির জন্যে বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করেছে বিএসএমএমইউ । গত ২৪/০৯/২০১৭ তারিখে প্রকাশিত বিজ্ঞপ্তিতে ভর্তিচ্ছু প্রার্থীদের আবেদন এর জন্যে বলা হয়েছে। বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, ভর্তিচ্ছু প্রার্থীগন আগামী ২৬ সেপ্টেম্বর ২০১৭ তারিখ থেকে শুরু করে ১৮ অক্টোবর ২০১৭ পর্যন্ত আবেদনপত্র জমা দিতে পারবেন। ভর্তিচ্ছু প্রার্থীগন ৪০০০( […]

সাম্প্রতিক পোষ্ট