প্রফেসর ডা. আবুল কাশেম চৌধুরী স্যার চলে গেছেন না ফেরার দেশে…

শুক্রবার, ১৭ আগস্ট ২০১৮, ভোর ৬টায়, মাইক্রোবায়োলজির বিশিষ্ট প্রফেসর ডা. আবুল কাশেম চৌধুরী বিএসএমএমইউ তে চিকিৎসাধীন অবস্থায় ইন্তেকাল করেন। ইন্নালিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন।

তার স্ত্রী বিএসএমএমইউর ডারমাটোলজি ডিপার্টমেন্টের প্রফেসর ডা. নার্গিস আখতার।তার একজন পুত্র এবং কন্যা সন্তান রয়েছে।

কর্মজীবনে তিনি স্যার সলিমুল্লাহ মেডিকেল কলেজ এবং বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল ইউনিভারসিটির মাইক্রোবায়োলজি ডিপার্টমেন্টের প্রফেসর ছিলেন।শেষ জীবনে ঢাকা কমিউনিটি মেডিকেল কলেজের মাইক্রোবায়োলজি ডিপার্টমেন্টের বিভাগীয় প্রধান ছিলেন।

তার মৃত্যুতে চিকিৎসক মহলে শোকের ছাঁয়া নেমে আসে।

শুক্রবার বাদ জুম্মা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল ইউনিভার্সিটি মসজিদের সামনে আর বাদ আসর দ্বিতীয় জানাযা অনুষ্ঠিত হয় পান্থপথ মসজিদের সামনে।

 

বিএসএমএমইউতে নামাজে জানাযায় উপস্থিত ছিলেন বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়ের সম্মানিত উপ-উপাচার্য (প্রশাসন) অধ্যাপক ডা. মুহাম্মদ রফিকুল আলম,বিএসএমএমইউর মেডিসিন বিভাগের চেয়ারম্যান অধ্যাপক ডা. এ বি এম আব্দুল্লাহ, রেজিস্ট্রার অধ্যাপক ডা. এ বিএম আব্দুল হান্নান, সাবেক রেজিস্ট্রার ও বর্তমানে ফার্মাকোলজি বিভাগের চেয়ারম্যান অধ্যাপক ডা. মো. সায়েদুর রহমান, মাইক্রোবায়েলজি এবং ইমিউনোলজি বিভাগের চেয়ারম্যান অধ্যাপক ডা. আহমেদ আবু সালেহ,বিশ্ববিদ্যালয়ের পরিচালক (হাসপাতাল) ব্রিগেডিয়ার জেনারেল মো. আব্দুল্লাহ আল হারুন সহ আরো অনেকে।

প্ল্যাটফর্ম ফিচার রাইটারঃ উর্বী সারাফ আনিকা
৫ম বর্ষ
রংপুর কমিউনিটি মেডিকেল কলেজ ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Time limit is exhausted. Please reload the CAPTCHA.

Next Post

স্মার্টফোন ও চোখের সমস্যা

Sun Aug 19 , 2018
এখন ছোট বড় সবার হাতে স্মার্ট ফোন। শুধু কি ফোন, আরো আছে ট্যাব, প্যাড,ল্যাপটপ আরো কত কি। মোবাইল ফোনের ক্ষতিকর দিক বিশেষ করে ব্রেন ও কানের জন্য ক্ষতিকর দিকগুলো নিয়ে কিছুটা আলোচনা হলেও চোখের ক্ষতিকর প্রভাব নিয়ে খুব একটা কথা হচ্ছেনা। আজকাল মা বাবারা প্রায়ই আমাদের কাছে জানতে চান বিশেষ […]

সাম্প্রতিক পোষ্ট